রাণীশংকৈলে সরকারি চাকুরীর পাশাপাশি লেখক হিসাবে পরিচিতি

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:৪১

রাণীশংকৈলে সরকারি চাকুরী করেও লেখার নেশায় যে মানুষটি প্রতিবছর একুশে বই মেলায় স্থান করে নিয়েছেন, সমাজে তার মূল্যায়ন তেমন চোখে পড়ার মতো নয়। 

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পঞ্চগড় শিক্ষা প্রকৌশলী অধিদপ্তরে সহকারী প্রকৌশলী ঠাকুরগাঁও জোনে পীরগঞ্জ-রাণীশংকৈলে দায়িত্বে রয়েছেন। 

ছাত্রজীবন থেকেই লেখালেখির অভ্যাস করে প্রথম লেখা কবিতা স্থানীয় পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। 

তিনি প্রথম কাব্যগ্রন্থ ছোট্ট একটি ভালোবাসা প্রকাশ করে ২০০৪ সালে, এর পর হতে সহকারী প্রকৌশলী জিল্লুর রহমান ২০০৫ সালে প্রকাশ করে প্রথম উপন্যাস ভ্যালেনটাইনস ডে। 

তারপর বিভিন্ন প্রকাশনার মাধ্যমে একে একে প্রকাশিত হতে থাকে ১টি কাব্যগ্রন্থ, ৪টি কিশোর উপন্যাস, ১৪টি উপন্যাস এবং ধারাবাহিক উপন্যাস গডফাদারের ০১-০৩ খ-। এবার অমর একুশে গ্রন্থমেলায় প্রকাশ পেয়েছে উপন্যাস দুঃখবিলাস পাওয়া যাবে ২১৮-২২০ স্টলে ঢাকার কিতাববিস্তানের প্রকাশনায় ।

পারিবারিক সূত্রে জিল্লুর রহমান ১ সেপ্টেম্বর ১৯৬৮ খ্রি. দিনাজপুর জেলার বিরল উপজেলার মির্জাপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পিতার নাম ইউনুছ আলী, মাতা: মরিয়ম নেছা। তিনি মির্জাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে পঞ্চম শ্রেণী পাস করার পর ধর্মপুর ইউ.সি দ্বিমূখী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস.এস.সি এবং দিনাজপুর পলিটেকনিক ইনস্টিটিটিউট থেকে প্রথম বিভাগে ডিপ্লোমা-ইন-সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং পাস করেন। পাশাপাশি বিরল কলেজ থেকে এইচ.এস.সি পাস করেন। 

ছাত্রজীবন শেষে তিনি স্কাই টাচ এ্যাপার্টমেন্ট, বেসরকারি সংস্থা কারিতাস এবং নটরডেম কলেজে দীর্ঘ দিন কাজ করার পর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরে যোগদান করেন। 

এ প্রসঙ্গে রাণীশংকৈল ডিগ্রি কলেজ অধ্যক্ষ তাজুল ইসলাম (বাংলা বিভাগ) বলেন আমাদের দেশে গুনি ব্যক্তিদের তেমন কদর নেই বললেই চলে, যে সমাজে গুনি ব্যাক্তির কদর নেই সে সমাজে গুনি ব্যাক্তি জন্মায় না। আশপাশে লুকিয়ে রয়েছে অনেক প্রতিভাবান ব্যক্তি তাদের সাথে সক্ষাৎ করলে সত্যিকারার্থে কিছু না কিছু শেখার আছে। 

এমনিভাবে প্রকৌশলী জিল্লুর রহমান কে সংবর্ধিত করে উসৎসাহ জোগালে অনে প্রতিভাবান ব্যক্তির জন্ম হবে। 

এ ব্যাপারে প্রকৌশলী লেখক জিল্লুর রহমান বলেন আমার লেখা বই একুশে গ্রন্থমেলার ২১৮,২১৯,২২০ নং স্টলে পাওয়া যাবে শুরু থেকে এ পর্যন্ত ২২টি বই প্রকাশনা হয়েছে তবে ২৫টি বই লিখেছি আশা করি পাঠকদের মাঝে ব্যাপক সাড়া জোগাবে। 

এবিএন/মোঃ মোবারক আলী/গালিব/জসিম
 

এই বিভাগের আরো সংবাদ