সীমানা প্রাচীর নির্মাণ নিয়ে

পাইকগাছায় পৌর কর্তৃপক্ষ ও উপজেলা প্রশাসনের মধ্যে টানাপোড়ন

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১১ জানুয়ারি ২০১৯, ২২:৩৪

খুলনার পাইকগাছায় পৌর কর্তৃপক্ষ ও উপজেলা প্রশাসনের মধ্যে চলছে টানাপোড়ন। পৌরবিধি না মেনে মেইন সড়কের পাশে উপজেলা পরিষদের ও প্রাণী সম্পদ দপ্তরের নিরাপত্তার জন্য সীমানা প্রাচীর তৈরী করা নিয়ে সৃষ্ঠি হয়েছে জটিলতার।

পৌর কর্তৃপক্ষ বলছে, পৌরসভার মাষ্ঠারপ্লান অনুযায়ী সকল সীমানা প্রাচীর তৈরীর জন্য উপজেলা প্রশাসনকে বারবার তাগিদ দেওয়া হলেও তারা তা মানছেন না। অপরদিকে উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা বলছেন নিয়ম মেনে সীমানা প্রাচীর দেওয়া হচ্ছে।
     
সুত্রে জানা গেছে, উপজেলা পরিষদের পুরাতন জরাজীর্ন সীমানা প্রাচীরটি ভেঙ্গে বৃহত আকারের গেট ও নতুন করে প্রাচীর নির্মান এবং প্রাণী সম্পদ দপ্তরের সামনে নতুন সীমানা প্রাচীরের কাজ শুরু করার পর থেকে সৃষ্ঠি হয়েছে পৌর কর্তৃপক্ষের সাথে উপজেলা প্রশাসনের দুরত্ব।

এ নিয়ে বিভিন্ন সময় পৌর কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্ঠ দপ্তরকে বিভিন্ন সময় চিঠি প্রেরন করেছেন বলে পৌর কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন। এরপরও বিষয়টি সুরাহ না হওয়ায় সর্বশেষ পৌর কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে শুক্রবার শেষ বিকালে উপজেলা প্রাণি সম্পদ দপ্তরের সামনে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পৌর মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর এর সভাপতিত্বে এবং কাউন্সিলর সেলিম নেওয়াজ ও ঘোলআনা ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিঃ এর কোষাধ্যক্ষ মৃতুঞ্জয় সরদারের পরিচালনায় প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন পাইকগাছা প্রেসক্লাব সভাপতি এড. এফএমএ রাজ্জাক, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কৃষ্ণপদ মন্ডল, কাউন্সিলর শেখ মাহবুবুর রহমান রঞ্জু, কবিতা দাশ, সরবানু বেগম, গাজী সালাম, এস,এম, তৈয়েবুর রহমান, অহেদ আলী গাজী, আলাউদ্দীন গাজী ও রবিশংকর মন্ডল, ব্যবসায়ী গফফার মোড়ল, যুবলীগ নেতা আজিবার রহমান ও আমিরুল ইসলাম, শ্রমিকলীগ নেতা শেখ জাহিদুল ইসলাম, শেখ মিথুন মধু, ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম।

বক্তারা পৌর বিধি মেনে সরকারি প্রাচীর নির্মানের জন্য সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবি জানিয়েছেন। এদিকে পৌরবিধি না মেনে সীমানা প্রাচীর নির্মান প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুলিয়া সুকায়না মুঠোফোনে জানান, নিয়ম মেনেই সীমানা প্রাচীর দেওয়া হচ্ছে। এরপরও যদি কোন অসুবিধা থাকে তাহলে পৌর কর্তৃপক্ষের সাথে বসে আলাপ আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

 

এবিএন/তৃপ্তি সেন/জসিম/রাজ্জাক

এই বিভাগের আরো সংবাদ
well-food