নাসিরনগরে জোড়া খুন : মামলা হয়নি পাঁচ দিনেও

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৫ জানুয়ারি ২০১৯, ১৭:০০

জেলার নাসিরনগর উপজেলার রামপুর গ্রামে পূর্ব শক্রতার জের ধরে জোড়া খুনের ঘটনা ঘটেছে। ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮রোজ সোমবার বেলাদেড় ঘটিকার সময় উপজেলার গোয়ালনগর ইউনিয়নের রামপুর গ্রামে এ খুনের ঘটনা ঘটে। ওই দিন প্রতিপক্ষের আঘাতে  বরজু মিয়া ৮৫ও রফিজা বেগম (২৫) নিহত হয়।

মূমুর্ষু অবস্থায় আহতদের মাঝে সোলমান মিয়ার ছেলে রাশিদ মিয়া,রোশন আলীর ছেলে আব্দুল হাই,টেনু মিয়ার ছেলে হিরন মিয়া,ইয়াসিন মিয়ার ছেলে মজু মিয়াএই ৪জনকে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।সংঘর্ষে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। প্রত্যক্ষদর্শীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে গ্রামের একদিকে এ্যাড. জাহাঙ্গীর আলম ও বল্টু মেম্বার অপরদিকে মো. মেরাজ মিয়া ও জয়নাল মেম্বার লোকজনের মাঝে দীর্ঘদিন যাবৎ মনোমালিন্য চলে আসছিল।

গত বৈশাখ মাসে  মেরাজ মিয়ার লোকজন এ্যাড. জাহাঙ্গীরের চাচাতো ভাই শাহিন মিয়া (৩৫ কে মারপিট করে।  মূমূর্ষ  শাহিন মিয়াকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে অপরেশনসহ চিকিৎসা করানো হয়। ওই ঘটনা এখন পর্যন্ত  কোন মামলা ও স্থানীয় শালিশ হয়নি। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান নাসিরনগর সদর ইউনিয়নের টেকানগর গ্রামের মোঃ বরজু মিয়া তার মেয়ের বাড়ি রামপুর বেড়াতে যায়। ঘটনার সময় বরজু মিয়া গ্রামের পূর্বদিকে মাঠে বীজতলা কাজ করছিল।

এ সময় তাকে গলা কেটে হত্যা করা হয়। পরে বল্টু মিয়ার লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে স-ুসজ্জি¦ত হয়ে মেরাজ মিয়ার লোকজনের বাড়ী ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। এ সময় রফিজা বাধা দিলেদুর্বৃত্তদের ধারালো পলের আঘাতে দরবেশ মেম্বারের মেয়ে রফিজা বেগমনিহত হয়। খবর পেয়ে নাসিরনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ সাজেদুর রহমান ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ বিষয়ে গোয়ালনগর ইউপি চেয়ারম্যান মো. আজহার উদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করে জানতে চাইলে তিনি বলেন দুইগ্রুপের মাঝে র্দীঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছিল। স্থানীয় গোষ্ঠীগত দ্বন্দে¦র কারণে এই খুনের ঘটনা ঘটেছে।

এ বিষয় নাসিরনগর থানার ওসি (তদন্ত) রঞ্জন কুমার ঘোষের সাথে যোগাযোগ করে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমরা এখন পর্যন্ত কোন পক্ষেরই অভিযোগ পাইনি। কি কারণে পাঁচ দিন অতিবাহিত হলেও কোন পক্ষ মামলা করেনি জানতে চাইলে তিনি বলেন, মনে হচ্ছে থানায় মামলা করলে তাদের ইচ্ছেমত আসামী করতে পারবেনা তাই আদালতে তাদের ইচ্ছেমত আসামী দিয়ে মামলা করতে পারে।


এবিএন/আব্দুল হান্নান/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ
well-food