চট্টগ্রামে শনিবার থেকে শুরু ৩য় আন্তর্জাতিক এসএমই মেলা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৭:৫৯

চট্টগ্রামে আগামী শনিবার থেকে শুরু হবে তিনদিনব্যাপী আন্তর্জাতিক ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) মেলা। নগরীর আগ্রাবাদ ওয়াল্ড ট্রেড সেন্টারে আয়োজিত এ মেলা চলবে আগামী ১০ ডিসেম্বর সোমবার পর্যন্ত।

চট্টগ্রাম চেম্বার এন্ড কমার্স লিঃ ৩য় বারের মতো এ মেলার আয়োজন করতে যাচ্ছে। শনিবার বিকেলে মেলার উদ্বোধন করবেন দ্য ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) সভাপতি মো. শফিউল ইসলাম (মহিউদ্দিন)।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে আগ্রাবাদ ওয়াল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে চট্টগ্রামের প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিক্স ও অনলাইন গণমাধ্যম কর্মীদের নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেন চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম। এসময় চেম্বারের সহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ, পরিচালক অহিদ সিরাজ চৌধুরী স্বপন ও ওমর হাজ্জাজ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প এসএমইতে জাপান পৃথিবীর দ্বিতীয় অর্থনৈতিক দেশ হিসেবে পরিচিত। জাপানের ন্যায় দেশেও এ খাতের প্রসারে অন্যতম ভুমিকা রাখছে চট্টগ্রাম চেম্বার।

সরকারিভাবে এ ধরনের মেলা ঢাকাতে আয়োজন করা হলেও চট্টগ্রামের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উদ্দ্যেক্তাদের দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পগ্রুপের কাছে পরিচয় করিয়ে দিতে চট্টগ্রাম চেম্বার এস এমই মেলার আয়োজন করে আসছে।

তাছাড়া দেশীয় পণ্যের প্রদর্শণ, বিপণনের মাধ্যমে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প বিকাশের লক্ষ্যে গত দুই বছর যাবৎ দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি বিভিন্ন ভাবে প্রচেষ্টা চালিয়ে আসছে বলে জানান চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম। উপস্থিত গণ মাধ্যম কর্মীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরে চেম্বার সভাপতি বলেন, এ মেলা আয়োজনের মাধ্যমে চট্টগ্রামের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উদ্দ্যেক্তাদের লোন পেতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাচ্ছে চেম্বার। অনেকে লোন পেয়ে সাবলম্বীও হয়েছে।
   
মেলা আয়োজক কমিটি সূত্রে জানা যায়, তিনদিনব্যাপী আন্তর্জাতিক ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (এসএমই) মেলায় প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিঃ ও ন্যাশনাল ক্রেডিট এন্ড কমার্স (এনসিসি) ব্যাংক লিমিটেডের স্পন্সরে আয়োজিত মেলায় এবার দুটি জোনে মোট ৫৮টি স্টল বরাদ্ধ দেওয়া হয়েছে।

এর মধ্যে প্রাইম জোনে ২৪টি ও জেনারেল জোনে ৩৪টি স্টল থাকছে। এর মধ্যে ৯টি ব্যাংকসহ প্লাস্টিক, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, পাট ও পাটজাত পণ্য, কৃষি পণ্য, হস্তশিল্প, চিকিৎসা, সেবা ও পর্যটন খাতের ৪৫টির অধিক প্রতিষ্ঠান এবারের মেলায় অংশ গ্রহণ করছে।

মেলায় দর্শণার্থীদের সার্বিক নিরাপত্তা দিতে আর্চওয়ে স্থাপন ও মেলা প্রাঙ্গণের চারপাশে সার্বক্ষনিক সিসি ক্যামেরা দ্বারা নিয়ন্ত্রিণ করা হবে। তাছাড়া পুলিশ র‌্যাবের পাশাপাশি আনসার ও নিরাপত্তা রক্ষীরা টহলে থাকবে বলে জানিয়েছে মেলা কমিটি।


এবিএন/রাজীব সেন প্রিন্স/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ