পঞ্চগড়ে ধান খেত থেকে নবজাতক উদ্ধার

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৩৬

পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় ধানক্ষেত থেকে সদ্য জন্ম নেয়া এক নবজাতককে উদ্ধার করেছে স্থানীয়রা। ঘটনাটি ঘটেছে পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার ময়দানদিঘী ইউনিয়নের আওকারী পাড়া এলাকার।

স্থানীয়দের মাধ্যমে উদ্ধার হওয়া নবজাতক বর্তমানে জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তরের অধীনে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এর আগে গত বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত তিন টায় বোদা উপজেলাধীন ময়দানদিঘী ইউনিয়নের আওকারী পাড়া এলাকা থেকে ওই নবজাতককে উদ্ধার করা হয়৷

জেলা সমাজসেবা অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, আওকারী পাড়া এলাকায় বুধবার দিবাগত রাতে একটি ধান খেত থেকে হঠাৎ করে এক শিশুর কান্নার আওয়াজ শুনতে পায় স্থানীয়রা। পরে কান্নার আওয়াজ শুনে স্থানীয় কয়েকজন সেই ধান খেত থেকে সদ্য প্রস্রবকৃত ওই নবজাতকে দেখতে পায় এবং সাথে সাথে বোদা থানায় খবর দেয়৷ এসময় স্থানীয়রা ভয়ে নবজাতক শিশুটিকে উদ্ধার করার সাহস না পেলেও ওই এলাকার নাসিমা বেগম নামে এক নারী নবজাতক শিশুকে দ্রুত উদ্ধার করে তার কোলো নিয়ে বাড়িতে নিয়ে যায়। পরে থানা পুলিশ, উপজেলা প্রশাসনের সহায়তায় বোদা উপজেলা সমাজসেবা অধিদপ্তর শিশুটিকে বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে শিশু ওয়ার্ডে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে। বর্তমানে নবজাতকটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

ধানক্ষেত থেকে শিশুটিকে উদ্ধারকারী নাসিমা জানান, কান্নার আওয়াজ শুনে আমরা স্থানীয়রা সবাই ধান খেতে গিয়ে দেখি একটি ছোট্ট শিশু কান্না করছে। পরে দেখার পর অনেকে শিশুটিকে কোলে নেয়ার সাহস না পাওয়ায় আমি শিশুটিকে আমার কোলে তুলে বাড়িতে নিয়ে যাই। এবং দেখাশোনা করি। এদিকে প্রশাসনসহ থানা পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা। প্রশাসন শিশুটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন। বর্তমানে শিশুটিকে নিয়ে হাসপাতালে আমিও রয়েছি।

পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ মনোয়ারুল ইসলাম বলেন, শিশুটির শারিরীক গঠন এখনপ ঠিক হয়নি, কিছুটা দূর্বলতা রয়েছে। শিশুটির শারিরীক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে৷ আমরা প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা দিয়ে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে৷

এ বিষয়ে বোদা উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা (ইউএনও) সোলেমান আলী জানান, উদ্ধার হওয়া শিশুটি জেলা সমাজসেবার মাধ্যেমে পঞ্চগড় সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। শিশুটি দ্বায়িত্ব কে নেবে বা কাকে দেয়া হবে এ বিষয়ে পরবর্তী আলোচনা সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে। বর্তমানে শিশুটি নিবিড় পর্যবেক্ষণে রয়েছে।


এবিএন/ডিজার হোসেন বাদশা/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ
ksrm