সোনাগাজীতে ধর্ষণের অভিযোগে চার বখাটে গ্রেফতার

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৯:৩৬

সোনাগাজী উপজেলায় এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে মঙ্গলবার মধ্যরাতে চার বখাটেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোনাগাজী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেন জানায়, সোনাগাজী উপজেলার বগাদানা ইউপির আলমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে গত সোমবার (১০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে হতদরিদ্রদের জন্য কমমূল্যে বিক্রয়কৃত (১০ টাকা দরে) চাল কিনে বাড়ি ফিরছিলো তরুণী।

এসময় স্থানীয় তিন বখাটে যুবক মেয়েটিকে জোরপূর্বক মুখচেপে ধরে পাশ্ববর্তী জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে তরুনী মেয়েটি অচেতন হয়ে পড়লে বাড়িতে পাঠানোর জন্য তাকে একটি সিএনজি অটোরিক্সাতে তুলে দিয়ে তারা পালিয়ে যায়।

ওই অটোরিক্সা চালক কিশোরী মেয়েটিকে নিয়ে নির্জন স্থানে ফের ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় মেয়েটির জ্ঞান ফিরলে সে দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে বাড়িতে এসে পরিবারকে ঘটনাটি জানালে মেয়ের বাবা স্থানীয় ইউপি সদস মহি উদ্দিন কে কে বিষয়টি অবগত করে।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে ইউপি সদস্য মহিউদ্দিন বখাটে তিন ধর্ষক জয়নাল আবেদীন (২০), নজরুল ইসলাম (২১) ও আনোয়ার হোসেনকে (২২) ডেকে পুলিশে হস্তান্তরের প্রস্তুতি নিলে তারা পালিয়ে যায়। পরে মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে নির্যাতিত কিশোরীর বাবা সোনাগাজী মডেল থানায় তিন ধর্ষক, সিএনজি অটোরিক্সা চালক আলমগীর হোসেন (২৩) নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো কয়েকজনকে আসামী করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে অভিযোগ দায়ের করে। পুলিশ মধ্যরাতে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত চার জনকে গ্রেফতার করেছে।

ঘটনার বিষয়ে জানার জন্য স্থানীয় ইউপ সদস্য মহি উদ্দিন কে থানায় ডেকে নিয়ে যায় পুলিশ। তবে স্থানীয়রা জানিয়েছে ,তরুনীটি এলাকায় দেহ ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত।এলাকায় এরপূর্বেও সে কয়েক জনের বিরুদ্ধে ধর্ষনের অভিযোগ আনলেও টাকার বিনিময়ে সে রফাদফা করে। সোমবার মেয়েটি স্বেচ্ছায় টাকার বিনিময়ে তাদের সাথে শারিরীকভাবে মিলিত হয় কিন্তু টাকা না পেয়ে ধর্ষনের অভিযোগ আনে।

পরিদর্শক মোয়াজ্জেম হোসেন আরো জানিয়েছে, গ্রেফতারকৃত আসামীদের বুধবার আদালতে প্রেরণ করা হবে। মেয়েটির শারীরিক পরীক্ষার জন্য তাকে ফেনী জেলা সদর হাসপতালে প্রেরণ করা হবে।

 

এবিএন/আবুল হোসেন রিপন/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ