চকরিয়ায় টমটম-কাভার্ডভ্যান সংঘর্ষ: নিহত ৪

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১২:১২ | আপডেট : ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৫:১৫

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়ায় ৭জন নিহত হওয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই আবারো সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কক্সবাজারের চকরিয়ার উপজেলার হারবাং ইনানী রিসোর্ট এলাকায় ফের কাভার্ড ভ্যান চাপায় টমটমের নারীসহ ৪ যাত্রী নিহত ও মা-মেয়েসহ আরো ৫ যাত্রী আহত হয়েছেন। পরে স্থানীয় লোকজন, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আহতদের উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। আহতদের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।  

নিহতরা হলেন-চকরিয়া উপজেলার হারবাং মুসলিমপাড়ার আবদুস সাত্তারের ছেলে মো. তাজউদ্দিন (২২), হারবাং জমিদার পাড়ার ছৈয়দ আহমদের ছেলে আবু তাহের (৫০) পেকুয়া উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের আবদুল খালেকের ছেলে ইউনিছ মিয়া (৩৫), অজ্ঞাত এক নারীর নাম পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ। 

আহতরা হলেন-চকরিয়ার হারবাং গয়ালমারা এলাকার দলিলুর রহমানের ছেলে জালাল উদ্দিন (৪৮), আবুল হোছাইনের ছেলে নূর হোছাইন (৪২), চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার মো. সেলিমের স্ত্রী সেলিনা আক্তার (৩২) তার শিশু কন্যা তাছফি (৮) ও অজ্ঞাত এক নারী।  

প্রত্যক্ষদর্শী ও হাইওয়ে পুলিশ সুত্রে জানা যায়, বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে একটি যাত্রীবাহি টমটম ৯জন যাত্রী নিয়ে বরইতলী রাস্তার মাথা থেকে মহাসড়ক হয়ে হারবাং যাচ্ছিল। যাত্রীবহণকারী ওই টমটমটি হারবাং ইনানী রিসোর্ট এলাকায় পৌছলে কক্সবাজারগামী একটি কাভার্ড ভ্যান টমটমকে চাপা দেয়। এসময় টমটমটি দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে দুই যাত্রী ঘটনাস্থলে মারা যায়। সাত যাত্রী সবাই আহত হয়। পরে স্থানীয় লোকজন, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আহতদের দ্রুত উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। এসময় হাসপাতালে আরো দুইজন মারা যায়। গুরুতর আহত ৫জনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়।  

চকরিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুকান্ত চৌধুরী বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে চকরিয়া থানা পুলিশ, ফায়ার সার্ভিসের লোকজন ঘটনাস্থলে পৌছে আহতদের উদ্ধার করে চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করেন। গুরুতর আহতের চমেক হাসপাতালে রেফার করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। 

চিরিঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সার্জেন্ট নুরে আলম বলেন, দুর্ঘটনা কবলিত কাভার্ড ভ্যান ও টমটম জব্দ করা হয়েছে। নিহত নারীর নাম পরিচয় পাওয়া যায়নি। মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর প্রক্রিয়া চলছে।
এদিকে, ঘটনার খবর পেয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) খোন্দকার মো.ইখতিয়ার উদ্দিন আরাফাত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এসময় তিনি আহতদের দ্রুত হাসপাতালে ব্যবস্থা ও চিকিৎসার দেয়ার জন্য চিকিৎসকদের নির্দেশনা প্রদান করেন এবং নিহতদের পরিবারের স্বজনদের শান্তনা দেন।

চকরিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) খোন্দকার মো.ইখতিয়ার উদ্দিন আরাফাত বলেন, নিহতের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে। চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে রেফার করা গুরুতর আহতদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। 

অপরদিকে, লোহাগাড়র চুনতি এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে প্রাইভেট কার সড়ক থেকে পিছলে বিলে পড়ে গেলে আহত হয় কালের কন্ঠের স্টাফ রিপোর্টার আসিফুল হাসনাত সিদ্দিকী ও তার মাসহ তিনজন আহত হয়। পরে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আসিফ চট্ট্রগ্রাম থেকে মাকেসহ নিয়ে চকরিয়ার কাকারায় আসছিলো স্মার্ট কার্ড নিতে।

এবিএন/ মুকুল  কান্তি দাশ/জসিম/নির্ঝর

এই বিভাগের আরো সংবাদ