গোবিন্দগঞ্জে কলেজছাত্রীকে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৩ মার্চ ২০২১, ১৬:৫৫

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে আবারো এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের। এ ঘটনায় লম্পট ধর্ষক জাফর কে গ্রেফতার করেছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ধর্ষণের শিকার শিক্ষার্থী গোবিন্দগঞ্জ মহিলা কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী। আত্মীয়তার সূত্রে প্রায়ই জাফর ঐ ছাত্রীর (সর্ম্পকে বোন) বাড়িতে যাতায়াতের সুবাদে তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। ঘটনার দিন সোমবার (১ মার্চ) রাত ৮টার দিকে সে দেবপুরে যায়। আত্মীয়তার সুবাদে খাওয়া-দাওয়া শেষে সে বাড়িতে ফিরে যায়। কিন্তু রাত ১০টার দিকে সে আবারো ফিরে এসে (সম্পর্কের বোন) শয়ন ঘরের দরজা খুলতে বলে আচমকাই জড়িয়ে ধরে ধর্ষণ করে। এবং পরিবারের সদস্যরা টেরপেয়ে  জাফরকে ধরে আটকে রাখে।

খবর পেয়ে পরের দিন মঙ্গলবার (২ মার্চ) লম্পটের স্বজনরা ঘটনাস্থল দেবপুর রফিকুলের বাড়িতে যায়। তারা বিয়ের মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে লম্পটকে উদ্ধারের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়।

স্থানীয়রা জানায়, এ ঘটনায় দুপুরের দিকে স্থানীয় ইউপি সদস্য ও লোকজনদের নিয়ে শালিসী বৈঠক বসে। মাঝপথে ইউপি সদস্য ও উপস্থিত কয়েকজন চা-পানের জন্য বৈঠক মুলতবী করে অদূরে চলে যায়। এরই ফাকে ছেলের পক্ষে কয়েকজন ওই বাড়িতে ঢুকে লম্পটকে ছিনিয়ে নিয়ে দ্রুত মোটরসাইকেলযোগে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।

এ ঘটনায় স্থানীয়রা লম্পটের আত্মীয় দরবস্ত মিরুপাড়া গ্রামের কোব্বাস আলীর ছেলে শামছুল ইসলাম ও তার ছেলে মমিন এবং পলাশবাড়ী উপজেলার পবনাপুর ইউনিয়নের গোপীনাথপুর মেলানদহ গ্রামের শিবলীর স্ত্রী জহুরা বেগমকে আটকে রাখে।

পরে পুলিশ খবর পেয়ে তাদেরকে থানায় নিয়ে আসে। এবং ধর্ষক মিরুপাড়া গ্রামের আইনুল ইসলামের ছেলে জাফর ইসলাম (১৯)কে গ্রেফতারের পর অন্যদেরকে ছেড়ে দিয়েছেন।

পরে ধর্ষিতা থানায় উপস্থিত হয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানায় একটি ধর্ষন মামলা দায়ের করে।

এ ব্যাপারে গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) আফজাল হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এবিএন/তাজুল ইসলাম/গালিব/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ