প্রসূতি মৃত্যুর ঘটনা

দাউদকান্দির রংধনু হাসপাতাল সিলগালা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৯ আগস্ট ২০১৮, ১৫:৩৯

চিকিৎসা অবহেলায় প্রসূতি মৃত্যুর ঘটনায় কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুরে  বেসরাকরী ব্যাক্তি মালিকানাধীন সেই রংধনু হসপিটালটি সিলগালা করে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

আজ বুধবার বেলা ১১টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাহবুব আলম স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জালাল হোসেনকে সঙ্গে নিয়ে এটি সিলগালা করেন। এ ঘটনায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গাইনি কনসালটেন্ট ডাঃ ফারজানা ইসলাম সম্পা এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. জালাল হোসেনকে প্রধান করে গঠন করা দু’টি তদন্ত কমিটি এনেসথেসিয়া করা ডাঃ সিরাজুল ইসলাম ও সিজারীয়ান অপারেশনকারী ডাঃ শাহনাজ পারভীন এর কাছ থেকে লিখিত বক্তব্য গ্রহন করেছেন।

জানাযায়, গত ২৪ আগস্ট তিতাস উপজেলার বাগাইরামপুর গ্রামের ডালিম মিয়ার অন্তঃসত্বা স্ত্রী নুরজাহানের প্রসব বেদনা উঠলে দাউদকান্দির রংধনু হসপিটালে নিয়ে যায় তার স্বজনরা। ওইদিন রাতেই  ডা. সিরাজুল ইসলামের  এনেসথেসিয়ায় এবং ডা. শাহনাজ পারভীন সিজারীয়ান অপারেশন করেন। পরদিন অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান রোগীর স্বজনরা।

 ২৬আগষ্ট রবিবার রাতে সেখানে চিকিৎনাধীন অবস্থায় মারা যায় নুরজাহান। বেসরকারি হাসপাতাল পরিচালনা নিয়ম নীতিকে বৃদ্ধাঙ্গলি দেখিয়ে ওই হাসপাতালে সিজারিয়ান অপারেশনের মতো ঝুঁকিপূর্ণ চিকিৎসা দিয়ে রোগীদের ঝুঁকিতে ফেলে দেয়ার এমন তথ্য উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাদের গোচরে থাকলেও সংশ্লিষ্ট কর্তপক্ষ ইতোপূর্বে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি বলে স্থানীয় সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা জানান।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব আলম জানান, একটি ১০ বেডের হাসপাতাল পরিচালনা করার মতো প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি, লোকবল এবং পরিবেশ না থাকায় রংধনু হসপিটালকে সিলগালা করা হয়েছে। অচিরেই অন্যান্য বেসরকারী হাসপাতাল গুলোতে অভিযান চালানো হবে।

এ বিষয়ে কুমিল্লা সিভিল সার্জন ডা. মুজিবুর রহমান মোবাইল ফোনে বলেন, আমার নির্দেশেই ওই হাসপাতালটি সিলগালা করা হয়েছে।  আর তদন্ত কমিটির রিপোর্ট হাতে পেলেই ঘটনায়  দোষিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

এবিএন/জাকির হোসেন/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ