ডোমারে ভূমিহীর ৭৮ পরিবার পেল আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৪ জানুয়ারি ২০২১, ১০:৪০

নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় মুজিববর্ষ উপলক্ষে ২৩ জানুয়ারী শনিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে পাকা ঘর ও জমি পেলেণন নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার ৭৮টি হতদরিদ্র পরিবার।

শনিবার সকাল সাড়ে দশটায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  এসব ভুমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের নিকট গৃহ হস্তান্তর কার্যক্রম ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে শুভ উদ্বোধন করার পর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহিনা শবনম সুবিধাভোগী এসব পরিবারের মাঝে জমির কাগজ হস্তান্তর করেন।

এ সময় সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মনোয়ার হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক সরকার,ভাইস চেয়ারম্যান রৌশন কানিজ,উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক খায়রুল আলম বাবুল, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন। ৭৮টি পরিবারের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের আশ্রয়ন প্রকল্পের ৩৮টি ও ব্যারাকে পুনর্বাসিত ৪০টি পরিবার।

প্রধানমন্ত্রীর আশ্রায়ন-২ প্রকল্প এর আওতায় উপজেলার সরকারি খাস জমিগুলোতে নির্মান করা হয়েছে এসব ঘর। ডোমার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিনা শবনমের প্রত্যক্ষ তদারকির মাধ্যমে সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন হয় ঘর তৈরির কাজ। উপজেলার গোমনাতি ইউনিয়নে ১১টি, বামুনিয়া ইউনিয়নে ৯টি, কেতকিবাড়ী ইউনিয়নে ৬টি, হরিনচড়া ইউনিয়নে ৫টি, বোড়াগাড়ী ইউনিয়নে ৭টি এবং পাঙ্গা মটুকপুর ইউনিয়নের মেলা পাঙ্গায় আশ্রয়ন প্রকল্প(ব্যারাক) মাধ্যমে ৪০টি পরিবারের মাঝে বাড়ী ও জমির কাগজ হস্তান্তর করা হয়।

উপজেলা প্রশাসন সুত্রে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর আশ্রায়ন-২ প্রকল্পের আওতায় ২০২০-২০২১ অর্থবছরে উপজেলার যেসব স্থানে সরকারের খাস জমি রয়েছে সে সকল জমিতে সেমিপাকা বসত ঘর তৈরী করা হয়েছে। দুই শতাংশ জমির উপর নির্মিত প্রতিটি সেমিপাকা বসত ঘরে রয়েছে দুটি কক্ষ ও একটি করে বারান্দা, বাথরুম ও রান্নাঘর। প্রতিটি ঘরের জন্য বরাদ্দ ১ লক্ষ ৭১ হাজার টাকা করে। এই প্রকল্পে ভিক্ষুক, প্রতিবন্ধী, বিধবা, স্বামী পরিত্যাক্তা, প্রবীণ ভূমিহীন ব্যক্তিদের উপকারভোগী হিসেবে বাছাই করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিনা শবনম বলেন, মুজিববর্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শনিবার সকালে উপহার হিসেবে ডোমার উপজেলার ৩৮টি হত দরিদ্র পরিবারের মাঝে ঘর হস্তান্তর কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধনের পর প্রধানমন্ত্রীর প্রতিনিধি হিসেবে আমি। ৭৮টি পরিবারের মাঝে ঘর ও জমির কাগজ সুবিধাভোগীদের মাঝে হস্তান্তর করি।

এবিএন/মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন/গালিব/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ