চারস্তরের ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা

প্রস্তুত কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২১ আগস্ট ২০১৮, ২৩:১৪ | আপডেট : ২১ আগস্ট ২০১৮, ২৩:২৭

কিশোরগঞ্জ, ঢাকা, ২১ আগস্ট, এবিনিউজ : দেশের বৃহৎ ও প্রাচীনতম ঈদ জামায়াতের জন্য কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। এবারের ১৯১তম ঈদুল আজহার জামাত শুরু হবে সকাল ৯টায়।

মাঠের নিয়মিত ইমাম মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ হজ পালন করতে যাওয়ায় জামায়াতে ইমামতি করবেন শহরের মারকায মসজিদের ইমাম হিফজুর রহমান খান। বেশি মুসল্লির সাথে জামাত আদায় করলে দোয়া কবুল হয়-এমন আকর্ষণে দূর-দূরান্ত থেকে ছুটে আসেন অনেক মুসল্লি।

দু’বছর আগে ঈদের দিন জঙ্গি হামলার প্রেক্ষাপটে এবার চার স্তরের নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা নিয়েছে প্রশাসন। এছাড়া পুরোমাঠ ও আশপাশ এলাকার আকাশ থেকে ড্রোনের মাধ্যমে মুসুল্লিসহ সকলের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করবে। মুসুল্লিদের যাতায়াতের সুবিধার্থে ভোর থেকে ভৈরব ও ময়মনসিংহ থেকে বিশেষ ট্রেন চলাচল করবে।
 
ঈদকে সামনে রেখে মাঠের দাগ কাটা, মেহরাব ও দেয়ালে চুনকাম করা, ওজুখানা তৈরি, পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতাসহ ঈদজামাত আয়োজনের সার্বিক প্রস্তুতি শেষ করেছে ঈদগাহ পরিচালনা কমিটি ও স্থানীয় প্রশাসন। জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী ও পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা বেশ কয়েকবার মাঠ পরিদর্শন করেছেন। শান্তিপূর্ণভাবে ঈদজামায়াত আয়োজনে প্রশাসনের পাশাপাশি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাও একযোগে কাজ করছেন।

২০১৬ সালের ৭ জুলাই ঈদের দিনে ভয়াবহ জঙ্গি হামলার প্রেক্ষাপটে শান্তিপূর্ণভাবে ঈদজামাত অনুষ্ঠানে বদ্ধপরিকর প্রশাসন। নিরাপত্তার বিষয়ে কঠোর অবস্থান নিয়েছে তারা। পর্যাপ্ত পুলিশ, র‌্যাব ছাড়াও মাঠে থাকবে বিজিবির বিপুল পরিমাণ সদস্য। এ ছাড়া সাদা পোশাকে ব্যাপক সংখ্যক পুলিশ সদস্যও থাকবে। মাঠে আর্চওয়ে, ওয়াচ টাওয়ার, সিসি ক্যামেরারও ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। মাঠ ও আশপাশ এলাকার আকাশে উড়ানো হবে ড্রোন। যাতে ড্রোন ক্যমেরার মাধ্যমে মুসুল্লিসহ সকল কিছুর গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করা যায়।

কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ঈদগাহ মাঠ পরিচালনা কমিটির সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মাসউদ এবিনিউজকে জানিয়েছেন, মাঠে দাগকাটা, চুনকামসহ যাবতীয় কাজ সম্পন্ন করা হচ্ছে। ঈদজামাতের জন্যে মাঠ পুরোপুরি প্রস্তুত।

কিশোরগঞ্জ পুলিশ সুপার মো. মাশরুকুর রহমান খালেদ, জানিয়েছেন, ঈদজামাত নির্বিঘœ করতে মাঠে চারস্তরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে। প্রত্যেক মুসল্লিকে তল্লাশির মাধ্যমে মাঠে প্রবেশ করানো হবে। সাদা পোষাকে বিপুল পরিমাণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করবেন। জামায়াত চলার আগে থেকেই মাঠে ও আশপাশ এলাকায় ড্রোন উড়ানো হবে।

ঈদগাহ মাঠ পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী এবিনিউজকে জানান, দুই বছর আগের জঙ্গি হামলার বিষয়টি মাথায় রেখে শোলাকিয়া মাঠের নিরাপত্তার বিষয়টি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। ঈদজামাত আয়োজনের সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। দূর-দূরান্ত থেকে আগত মুসুল্লিদেরকে খাবারসহ আবাসন ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনি সবাইকে আগাম ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

এবিএন/শাফায়েতুল ইসলাম/জসিম/এমসি

এই বিভাগের আরো সংবাদ