রামপালে খানজাহান আলী বিমানবন্দরের চেক হস্তান্তর

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৭ আগস্ট ২০১৮, ২০:৫২

রামপাল (বাগেরহাট), ১৭ আগস্ট, এবিনিউজ: খুলনা সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আ. খালেক বলেছেন , প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চলের মানুষের ভাগ্য খুলে দিয়েছেন। নির্মানাধীন পদœা সেতু,রামপালের তাপবিদ্যুতকেন্দ্র,খানজাহান আলী বিমানবন্দর,রেলপথ,রাস্তা ঘাট সহ নানামূখী উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে দক্ষিন পশ্চিমাঞ্চল দেশের অর্থনৈতিক জোনে পরিনত হবে। আর একমাত্র আওয়ামীলীগ সরকার এই পরিবর্তন ও উন্নয়নের দাবিদার। আজ শুক্রবার সকাল ১০ টায় রামপালের ফয়লাহাট খানজাহান আলী বিমানবন্দরের অধিগ্রহনকৃত জমির দখল হস্তান্তর শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, বিমানবন্দরে যাদের জায়গা অধিগ্রহন করা হয়েছে তাদের পূনর্বাসন দেয়ার জন্য বিমান চলাচল কতৃপক্ষের কাছে আমি জোর দাবি জানিয়েছি। বিমানবন্দরে ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকদের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ দেয়া হয়েছে। তবে আমি মানবিক দৃষ্টিকোন থেকে তাদের বিকল্প বাসস্থানের ব্যাবস্থা করার জন্য বিমান কতৃপক্ষকে অনুরোধ করেছি। অনেক জমির মালিকদের নানা অভিযোগ যাচাই বাছাই করার আশ্বাস প্রদান করে তিনি বলেন, দূর্নিতীর আশ্রয় নিয়ে কেউ সরকারের একটি টাকাও নিতে পারবে না। এ বিষয়ে তিনি সকলকে সোচ্চার থাকার আহবান জানান। বাগেরহাট জেলা প্রশাসক তপন কুমার বিশ্বাসের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন, বাগেরহাট ৩ আসনের সংসদ সদস্য হাবিবুন নাহার, অতিরিক্ত সচিব মোঃ হেমায়েত হোসেন,যুগ্ন সচিব সাইফুল ইসলাম, জেলা পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায়,প্রকল্প পরিচালক মো. শহীদুল আফরোজ। প্রথম দফায় ১৯৯৩ সালে ৯৩ একর জমি অধিগ্রহনের মাধ্যমে বিমানবন্দর বাস্তবায়নের সূচনা করা হয়। এরপর ১৯৯৬ সালে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় এসে তৎকালীন দূর্যোগ ব্যাবস্থাপনা ও ত্রান প্রতিমন্ত্রী ও বর্তমান সিটি মেয়র তালুকদার খালেক ওই জমিতে মাটি ভরাটের কাজ সম্পন্ন করান। একনেক সভায় প্রস্তাবিত বিমানবন্দরের খসড়া অনুমোদন করার পর বেসকারী বিমান চলাচল কতৃপক্ষ মোট ৫৩৬ একর জমি অধিগ্রহন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে। এর জন্য প্রথম দফায় ২০১৭ সালের ৮ ফেব্রুয়ারী ৩ ধারায় জমির মালিকদের নোটিশ প্রদান করা হয়। পরবর্তীতে জুলাই ২০১৮ সালে বাগেরহাট জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে ৭ ধারায় নোটিশ প্রদান করা হয়। নেটিশ প্রদানের পরে এই খানজাহান আলী বিমানবন্দর শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় এল.এ ৫/২০১৬-১৭ নং কেসে অধিগ্রহনকৃত জমির দখল হস্তান্তর সভায় মোট ২০ জন জমির মালিককে তাদের জমির চেক হস্তান্তর প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়েছে। এরপর পর্যায়ক্রমে সকল জমির মালিকদের তাদের জমির ন্যায্য মূল্যের চেক প্রদান করা হবে। সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রামপাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তুষার কুমার পাল,ভাইস চেয়ারম্যান মোয়াজ্জেম হোসেন,হোসনেয়ারা মিলি,মুশফিকুল হালিম, মোল্ল্যা আ. রউফ,উজলকুড় ইউপি চেয়ারম্যান গাজী আকতারুজ্জামান,বাইনতলা ইউপি চেয়ারম্যান ফকির আব্দুল্লাহ,আলহাজ্ব গাজী গিয়াস উদ্দিন, গাজী রাশেদুল ইসলাম ডালিম,মুন্সি বোরহান উদ্দিন জেট সহ সরকারী বেসকারী দপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারী, সাংবাদিকবৃন্দ সহ স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও তার অংগসংগঠনের নেতাকর্মীরা । 


এবিএন/সাইফুল আলম/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ