মেলান্দহে ভিজিএফ’র চাল ওজনে কম বিতরণ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৬ আগস্ট ২০১৮, ২১:৪০

জামালপুর, ১৬ আগস্ট, এবিনিউজ : জামালপুরের মেলান্দহে ভিজিএফ’র চাল ওজনে কম দেয়ার অভিযোগ ওঠেছে। আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে মেলান্দহে ১হাজার ১শ’ ৪০ দশমিক ৯৮ মে:টন ভিজিএফ’র চাল বরাদ্দ দেয়া হয়। এবার প্রতিজনকে ১০ কেজির স্থলে ২০ কেজি করে চাল বিতরণের কথা। 

বিগত দিনে ১০ কেজি চালের মধ্যেও অনিয়মের অভিযোগের প্রেক্ষিতে পাট-বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী আলহাজ মির্জা আজম এমপি উষ্মা প্রকাশ করেছেন। যা গত ১১ আগস্ট আরএমপি মহিলাদের মাঝে জমাকৃত টাকার চেক বিতরণকালে ভিজিএফ’র চাল সুষ্ঠুভাবে বিতরণের জন্য ইউএনওকে নির্দেশ দেন। 

এসময় তিনি কোন ধরণের অনিয়মকে বরদাশত করবেন না মর্মে হুশিয়ার করে বলেন-কোন দলীয় বা অন্য কোটার নামেও স্লিপ ভাগাভাগির নামে অনিয়ম চলবে না। একমাত্র হতদরিদ্রদেরই এই ভিজিএফ প্রাপ্য। যা স্থানীয়-জাতীয়-অনলাইন মিডিয়ায় প্রচারিত হয়েছে। এরপরও ভিজিএফ’র চাল বিতরণে অনিয়ম পরিলক্ষিত হচ্ছে। ১৬ আগস্ট ঘোষেরপাড়া ইউনিয়নে ২০ কেজির স্থলে ১৫/১৬ কেজি করে চাল বিতরণ করতে দেখা গেছে। পিআইও অফিস সুত্রে জানাগেছে, এবার ঘোষেরপাড়া ইউনিয়নে ১৩০ মে:টন চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

ইউপি চেয়ারম্যান ওবায়দুর রহমান জানান-দলীয় কোটায় ২হাজার জনের তালিকার স্লিপ প্রদান করা হয়েছে। মেম্বারদের ২৫০ করে স্লিপ প্রদান করে বাকি স্লিপ চেয়ারম্যানের কোটায় রেখেছেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, মেম্বারদের তালিকাভূক্ত স্লিপধারীদের মাঝে চাল বিতরণকালে ওজনে ৩/৫ কেজি পর্যন্ত কম দেয়া হয়েছে। আবার সিন্ডিকেটের একই লোক বারবার চাল উত্তোলন করছেন। অথচ প্রকৃত অনেক হতদরিদ্ররা স্লিপই পান নি। গুদার বাজার এলাকার বিধবা কুলসুম (৪৫), সুফিয়া (৪৫)’র নাম তালিকায় নেই, জেনে ইউপি চেয়ারম্যান প্রতিজনকে ১০ কেজি করে চাল দিয়ে বিদায় করেন।

এ ব্যাপারে ইউএনও তামিম আল ইয়ামীন জানান- সঠিকভাবে চাল বিতরণের জন্য কড়া নির্দেশ দেয়া আছে। অনিয়মকারিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। ইউপি চেয়ারম্যান ওবায়দুর রহমান ওজনে কম দেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন-একটু আধটু কম অনিয়মের আওতায় পড়ে না। সচেতন মহলের প্রশ্ন যে পরিমাণ চাল বরাদ্দ আসছে, তাতে অর্ধেক বিতরণ করলেও চাল নেয়ার লোক পাওয়ার কথা নয়।

এবিএন/মো: শাহ্ জামাল/জসিম/রাজ্জাক
 

এই বিভাগের আরো সংবাদ