কুবিতে সমাবর্তনের ফিস কমাতে আইনি নোটিশ

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২২ নভেম্বর ২০১৯, ১৫:২১

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) আসন্ন সমাবর্তনে অংশ না নিলেও সমপরিমাণ ফিস দিয়ে সনদ নেওয়া এবং সমাবর্তনের জন্য নির্ধারিত ফি কমানোর দাবিতে আইনি নোটিশ প্রেরণ করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা শিক্ষা বিভাগের ৪র্থ ব্যাচের শিক্ষার্থী মো. তারেক রহমানের অভিযোগের প্রেক্ষিতে এই আইনি নোটিশটি প্রেরণ করা হয়।

বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এডভোকেট একলাছ উদ্দিন ভূঁইয়া বাদীর পক্ষে এ আইনি নোটিশটি প্রেরণ করেন। এই আইনি নোটিশটি গতকাল (২১ নভেম্বর) বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও রেজিস্ট্রার বরাবর পাঠানো হয়।

আইনি নোটিশে উল্লেখ করা হয়, আগামী ২৭ জানুয়ারি কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তনে অংশগ্রহণের রেজিস্ট্রেশনের জন্য প্রত্যেক স্নাতক ডিগ্রীধারীদের জন্য ৩৫৫০ টাকা এবং স্নাতকোত্তর এর ক্ষেত্রে ৪০৫০ টাকা বিকাশে পাঠাতে বলা হয়েছে। এই ফিস দেশের অন্য স্বনামধন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তুলনায় অস্বাভাবিক। আরও বলা হয়েছে সমাবর্তনে অংশ না নিলেও সমাবর্তনের সমপরিমাণ ফিস দিয়ে সার্টিফিকেট নিতে হবে। যা বে-আইনি। যেখানে শিক্ষার্থীগণ শিক্ষা জীবন শেষ করে বেকার তাদের উপর বিষয়টি মরার উপর খাড়ার ঘা হিসেবে দেখা দিয়েছে।

নোটিশটিতে নোটিশ প্রেরণের তারিখ থেকে ৭২ ঘন্টার মধ্যে নোটিশ দাতার দাবির প্রেক্ষিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলা হয়েছে। অন্যথায় সমাবর্তন বন্ধে উচ্চ আদালতের আশ্রয় নেওয়া হবে বলেও নোটিশে উল্লেখ করা হয়।

এ বিষয়ে নোটিশদাতা আইনজীবি এডভোকেট একলাছ উদ্দিন ভূইয়া বলেন, ‘সমাবর্তনের ফি অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনায় বেশি। অনেক বেকার শিক্ষার্থী আছেন তাদের জন্য এটি বেশি, পাশাপাশি সমাবর্তনে অংশ না নিয়েও সনদ নিতে সমপরিমাণ ফি প্রদানের নির্দেশনাও অযৌক্তিক। তাই বাদীর পক্ষে সংশ্লিষ্টদের বরাবর বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন ফি সংক্রান্ত আইনি নোটিশ প্রেরণ করেছি।' অন্যদিকে বাদী মো: তারেক রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, 'নোটিশে যা লেখা আছে সেটিই আমার বক্তব্য।'

আইনি নোটিশের ব্যাপারে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. আবু তাহের বলেন, ‘আমরা নোটিশটি সম্পর্কে জানতে পেরেছি। আমরা সমাবর্তন নিয়ে ইতিবাচক চিন্তায় আছি। আমরা আমাদের মতো আইনি প্রক্রিয়াতেই এই ব্যাপারে আগাবো।’

সমাবর্তনের ফিস প্রসঙ্গে তিনি বলেন,‘আমরা কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমসাময়িক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ফি'র সাথে সমন্বয় করেই ফিস নির্ধারণ করেছি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে তুলনা করে লাভ নেই তাদের সমাবর্তনে রেজিস্ট্রেশন অনেক বেশি সংখ্যায় করে। আর আমাদের লাঞ্চ, গিফটসহ অনেক কিছুই আছে যেগুলো যেসব বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে তুলনা করা হচ্ছে সেগুলোর থেকে বেশি।' উল্লেখ্য, আগামী ২০২০ সালের ২৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম সমাবর্তন।


এবিএন/শিহাব উদ্দিন/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ