ইবি ছাত্রলীগ সম্পাদক গ্রেফতার

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৯ নভেম্বর ২০১৯, ১৯:০৬

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন ইসলামী বিশ^বিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব। গতকাল শুক্রবার রাত নয়টার দিকে কুষ্টিয়া শহর থেকে তাকে আটক করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ইবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আরিফ। এদিকে আটকের পূর্বে অজ্ঞাত উৎস থেকে প্রাণনাশের হুমকি পেয়ে রাকিব কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন বলে জানা গেছে।

ইবি থানা সূত্রে জানিয়েছে, গত ২ নভেম্বর ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ এর ২৫ (১)(ক)/৩১(১)/৩৫ ধারা অনুযায়ী শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিব এবং সাবেক উপ-বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক জুবায়ের রহমানসহ ৭/৮ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামী করে একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলার বাদী ছিলেন শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা হালিম।

ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি জুয়েল রানা হালিম ও স্থানীয় এক সাংসদের এপিএস (সহকারী ব্যক্তিগত সচিব) আমজাদ হোসেন রাজুর বিষয়ে একটি অডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। ওই অডিওতে শোনা যায় হালিম নেতা থাকা অবস্থায় ক্যাম্পাস থেকে ১০ কোটি টাকা কামিয়েছেন। এছাড়া সেই টাকা থেকে এপিএস রাজু ২ কোটি টাকা ভাগ পেয়েছেন। অডিওর মধ্যে রাকিবকে এসব কথা বলেন জুবায়ের। পরে ওই অডিও ক্লিপটি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, চেতনায় মুক্তিযুদ্ধ, বিজয় বাংলা একাত্তরসহ বিভিন্ন ফেসবুক আইডিতে ছড়িয়ে পড়ে।

এদিকে এই ঘটনায় এপিএস রাজুসহ নিজের সম্মান ও সামাজিক মর্যাদা ক্ষুন্ন হয়েছে বলে দাবি করেন জুয়েল রানা হালিম। এছাড়া অডিওটি রাকিব ও জুবায়ের উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে ভাইরাল করেছেন বলেও থানায় অভিযোগ করে তিনি।

এ বিষয়ে ইবি থানার ওসি জাহাঙ্গীর আরিফ বলেন, ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮’ মামলায় তাকে গ্রেফতার করে আজ (শনিবার) সকাল দশটার দিকে কোর্টে চালান করা হয়েছে।’

এদিকে আটকের আগে সাধারণ সম্পাদক রাকিব কুষ্টিয়া মডেল থানায় নিরাপত্তার চেয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন বলে থানা সূত্রে জানা যায়। গত ৮ নভেম্বর বিকেল সাড়ে ৫টার অপরিচিত এক নম্বর থেকে তার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরে কল করে হত্যা এবং গুম করার হুমকি দেয়া হয়েছে বলে জিডিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

অডিও ক্লিপটি প্রতিবেদকের কাছে সংরক্ষিত আছে। ৪৮ সেকেন্ডের ওই অডিও ক্লিপে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি রাকিবকে হুমকি দিয়ে বলেন, ‘তোকে যেন ক্যাম্পাসের আশপাশেও না দেখি; দেখলে তোর ঘাড়ে মাথা থাকবে না। ঘরের ছেলে ঘরে থাক। নইলে পরবর্তিতে তোর লাশও খুঁজে পাওয়া যাবে না।’ হুমকির পেয়ে রাকিব কুষ্টিয়া মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। এর কিছুক্ষণ পর তিনি গ্রেফতার হন।

 

এবিএন/অনি আতিকুর রহমান/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ