রাবিতে বর্ণিল আয়োজনে বৈশাখ উদযাপন

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৪ এপ্রিল ২০১৯, ১৭:০৯

পহেলা বৈশাখ ! বাঙালির ঐতিহ্যের অন্যতম একটি উৎসব। বাঙালীর সংস্কৃতির বাহন হিসেবে এর খ্যাতি বিশ্বব্যাপী সমাদৃত। দিনটি উদযাপনে নানা আয়োজনে  পুরো দেশ মাতোয়ারা। সেই উৎসবকে বরণ করে নিতে ভুলেনি দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম বিদ্যাপীঠ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়। ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা ও বর্ণিল আয়োজনের মধ্য দিয়ে উদযাপিত হয়েছে বাঙালীর প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ।

বছরের প্রথম দিন সূর্য উদিত হওয়ার সাথে-সাথেই বিশ্ববিদ্যালয়ে শিশু-কিশোর থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সী নারী ও পুরুষের ঢল নামে। জাতি ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবাই মেতে ওঠে নববর্ষের আনন্দ উল্লাসে। আনন্দ আর খুশির স্বর্ণধারায় নতুন বছরকে বরণ করতে ভুলেনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন বিভাগ। বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা বিভাগ ‘মস্তক তুলিতে দাও অনন্ত আকাশে’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে বেলা ১১ টায় বের করে বিশাল মঙ্গল শোভাযাত্রা।

 বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম. আব্দুস সোবহান শোভাযাত্রা উদ্বোধন করেন। সকাল থেকে ঢাক ডোল আর গান বাজনায় মুখোরিত ছিল পুরো ক্যাম্পাস। বিভিন্ন বিভাগ ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকেও বের করা হয় শোভাযাত্রা। কৃষক, জেলে, সাপুড়েসহ বিভিন্ন সাজে সজ্জিত হয়ে পুরো ক্যাম্পাস মাতিয়ে তোলে শিক্ষার্থীরা। কেউ বা আবার সাজে বর-কনে যা ভিন্নমাত্রা এনে দেয় পুরো ক্যাম্পাসে।শুষ্ক বৃক্ষের মধ্যে প্রাণের সঞ্চার হওয়ার একটা প্রবণতা পহেলা বৈশাখে প্রতিটি মানুষের মধ্যে ফুটে উঠেছে। প্রত্যেকে প্রানভরে দেখে নিয়েছে জাতির চিরায়ত সংস্কৃতি, আবেগ অনুভুতি কতটা বাস্তব চিত্র।

এবারের বর্ষবরণের মূল আকর্ষন ছিল ‘ঘোড়া, হাতি ও ময়ূর’। বাংলাদেশ কৃষি প্রধান দেশ এবং দেশ দ্রুত অর্থনীতির দিকে ধাবিত হওয়ায় এমন থিম বানিয়েছে বলে জানায় চারুকলা অনুষদের শিক্ষার্থীরা। ঘোড়া হল পৃথিবীর মধ্যে একটি উল্লেখযোগ্য দ্রুতগামী প্রাণী। তাই বাংলাদেশের অর্থনীতিও ঘোড়ার মতো খুব দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। হাতি হলো সুস্বাস্থের অধিকারী বাংলাদেশ অর্থনীতিক ভাবে স্বয়ং সম্পূর্ণ হওয়ার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। আমাদের দেশ এখন বিভিন্ন রঙে রঙিন হচ্ছে যার ফলে ময়ূরের থিম বানানো হয়েছে।

বর্ষবরণের সার্বিক নিরাপত্তার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, বর্ষবরণ উপলক্ষে ক্যাম্পাসে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। ক্যাম্পাস জুড়ে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকগুলোতে বিশেষ নজর দারি ব্যবস্থা করা হয়েছে ।


এবিএন/উমর ফারুক/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ
well-food