বঙ্গমাতার জন্মদিনে জবি ছাত্রলীগের খাবার বিতরণ ও দোয়া মাহফিল

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৮ আগস্ট ২০১৮, ১৬:০০ | আপডেট : ০৮ আগস্ট ২০১৮, ১৬:৩৪

জবি, ০৮ আগস্ট, এবিনিউজ : বঙ্গমাতা বেগম শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের ৮৮ তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) ছাত্রলীগ দোয়া মাহফিল ও দুস্থদের মাঝে খাদ্য বিতরণ করেছে। আজ বুধবার বাদ জোহর বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

দোয়া মাহফিলের বক্তব্যে জবি শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ জয়নুল আবেদীন রাসেল বলেন, স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিণী, মহীয়সী নারী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব। আজ তাঁর ৮৮ তম জন্মদিন। ১৯৩০ সালের ৮ আগস্ট গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া গ্রামে তিনি জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের কালরাতে জাতির পিতার হত্যাকারীদের নিষ্ঠুর, বর্বরোচিত হত্যাযজ্ঞের শিকার হন তিনি। তৎকালীন ফরিদপুরের টুঙ্গিপাড়ার অজপাড়াগাঁয়ের সন্তান শেখ মুজিব দীর্ঘ আপসহীন লড়াই-সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় ধীরে ধীরে শুধু বাঙালি জাতির পিতাই নন, বিশ্ববরেণ্য রাষ্ট্রনায়কে পরিণত হয়েছিলেন, তার পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন তারই সহধর্মিণী, মহীয়সী এই নারী বঙ্গমাতা ফজিলাতুন নেছা মুজিব।

বঙ্গবন্ধুর সমগ্র রাজনৈতিক জীবন ছায়া আর অফুরান অনুপ্রেরণার উৎস ছিলেন তিনি। বাঙালি জাতির মুক্তি সনদ ছয় দফা ঘোষণার পর বঙ্গবন্ধু যখন বারে বারে পাকিস্তানি শাসকদের হাতে বন্দী জীবন-যাপন করছিলেন, তখন দলের সর্বস্তরের নেতা-কর্মীরা তার কাছে ছুটে আসতেন, তিনি তাদের বঙ্গবন্ধুর বিভিন্ন দিক-নির্দেশনা পৌঁছে দিতেন এবং লড়াই-সংগ্রাম চালিয়ে যাওয়ার জন্য অনুপ্রেরণা জোগাতেন।

সভাপতি তরিকুল ইসলাম তার বক্তব্যে বলেন, কিশোর শেখ মুজিব থেকে বঙ্গবন্ধু  শেখ মজিব হওয়ার পেছনে শেখ ফজিলাতুন নেছার অবধান ছিল অনন্য গুরুত্বপূর্ণ।
বঙ্গমাতা এখনকার নারীদের জন্যও অনুকরণীয় আদর্শ হয়ে থাকবেন। তাঁর অবদান বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।

দোয়া মাহফিল শেষে বিশ্ববিদ্যালয় গেটে ২ শতাধিক দুস্থদের মাঝে খাদ্য বিতরণ করা হয়। এসময় জবি শাখা ছাত্রলীগের শতাধিক কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

এবিএন/মোস্তাকিম ফারুকী/জসিম/এমসি

এই বিভাগের আরো সংবাদ