প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধান করা উচিত: প্রধানমন্ত্রী

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৪ মার্চ ২০২১, ২২:০৬ | আপডেট : ০৪ মার্চ ২০২১, ২২:০৮

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘প্রতিবেশী দেশগুলোর মধ্যে সমস্যা থাকতে পারে। সমস্যাগুলো আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা উচিত।’

বাংলাদেশে সফররত ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্কর বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি একথা বলেন।  প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

বৈঠকে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী স্বল্পোন্নত দেশের (এলডিসি) তালিকা থেকে বাংলাদেশের উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের জন্য শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, ‘এটি একটি বড় অর্জন। বাংলাদেশের উন্নয়ন অলৌকিক…।’

কোভিড-১৯ সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে চিকিৎসক, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য ও প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে যুক্ত করে বাংলাদেশ কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণে তাৎক্ষণিক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ গত মাসে দেশব্যাপী টিকাদান কর্মসূচি চালু করেছে। কোভিড-১৯ টিকা কর্মসূচী পর্যায়ক্রমে চালু করা হচ্ছে এবং সবাইকে টিকার আওতায় অন্তর্ভুক্ত করার লক্ষ্য রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রে ভারত থেকে প্রাপ্ত সহায়তার প্রশংসা করেছেন। তিনি বলেন, সাম্প্রতিক বন্যা ও ঘূর্ণিঝড়ের সঙ্গে কোভিড-১৯ মহামারি সত্ত্বেও বাংলাদেশের অর্থনীতি উন্নতি করছে। এই সময়ে এর রেমিট্যান্স প্রবাহও বেড়েছে।

মহামারি চলাকালীন কৃষিকাজ বাংলাদেশের অগ্রাধিকারে ছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আরও বেশি খাদ্য উৎপাদনে জোর দেওয়া হয়েছে।’

শেখ হাসিনা বলেন, সরকার এই কঠিন সময়ে প্রবাসফেরতদেরও সহায়তা দিয়েছে।

ড. জয়শঙ্কর কোভিড-১৯ পরিস্থিতি মোকাবিলায় বাংলাদেশকে সহায়তা করার জন্য ভারতের প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, ‘কোভিড-১৯ মহামারির কারণে আমরা এই অঞ্চলের সবাই সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছি।’

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে অংশ নেওয়া ভারতের জন্য বড় সম্মানের। ড. জয়শঙ্কর বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে যোগ দিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফর নিয়ে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেনের সঙ্গে তার একটি ফলপ্রসু বৈঠক হয়েছে।

শেখ হাসিনাকে দুটি বই উপহার দেন সফররত ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। যার একটির নাম ‘বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ’। পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বাবা কে সুব্রামানিয়ামের লেখা এটি।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী 'জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ওপর গোয়েন্দা শাখার গোপন ডকুমেন্টস' শীর্ষক ১৪ খণ্ডের বইয়ের সাত খণ্ড ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে উপহার দেন।

বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেনের আমন্ত্রণে সংক্ষিপ্ত সরকারি সফরে বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকায় আসেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এবিএন/মমিন/জসিম 

এই বিভাগের আরো সংবাদ