কলকাতা বইমেলা পরিবেশবান্ধব করতে বিশেষ উদ্যোগ নিচ্ছে গিল্ড

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৩ জানুয়ারি ২০২০, ১২:০০

আগামী ২৯ জানুয়ারি বুধবার সরস্বতী পুজোর দিন ৪৪তম কলকাতা আন্তর্জাতিক বইমেলার আনুষ্ঠানিক সূচনা করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উদ্যোক্তা পাবলিশার্স অ্যান্ড বুকসেলার্স গিল্ড সল্টলেকের সেন্ট্রাল পার্কের মেলা গ্রাউন্ডে এই বইমেলাকে ‘পরিবেশবান্ধব’ হিসেবে তুলে ধরার বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে। 

গিল্ডের সাধারণ সম্পাদক সুধাংশুশেখর দে ও সভাপতি ত্রিদিব চট্টোপাধ্যায় বুধবার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, পরিবেশবান্ধব যান সাইকেলে চেপে যাতে বইমেলায় দর্শকরা আসতে পারেন, সে জন্য সাইকেল পার্কিংয়ের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে। আরও কিছু পরিবেশ সহায়ক ব্যবস্থা আগামী দিনে ঘোষণা করা হবে। নগরোন্নয়ন দপ্তরের সঙ্গে এব্যাপারে আলোচনা চলছে। যদিও স্টল থেকে বই কেনার সময় তা প্লাস্টিকের প্যাকেটে দেওয়া বন্ধ করা হবে কি না, সেব্যাপারে তিনি কোনও মন্তব্য করতে চাননি। তবে বইমেলার গ্রিন পার্টনার হিসেবে ‘ন্যাশনাল জুট বোর্ড’কে রাখা হয়েছে। প্লাস্টিকের বদলে জুট বা কাপড়ের তৈরি ক্যারিব্যাগের ব্যবহার এখন বিভিন্ন ক্ষেত্রে বাড়ছে। বইমেলার সঙ্গে এবারও সক্রিয়ভাবে যুক্ত রয়েছে সিইএসসি। 

সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর দেবাশিস বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, পেট্রল-ডিজেল চালিত যানবাহন ও কয়লার উনুনে রাস্তার হোটেলে রান্নার ফলে শহরের বায়ুদূষণ বাড়ছে। বিষয়টির উপর সচেতনতা বৃদ্ধিতে তাঁরা জোর দেবেন। বিদ্যুতের চার্জে চলা গাড়ি ও বিদ্যুৎ ব্যবহার করে রান্না করার জন্য প্রচার চালানো হবে মেলায়। ইলেকট্রিক চার্জে চালানো একটি দুই চাকার গাড়ি ও ইলেকট্রিক যন্ত্র দিয়ে রান্না করা দেখানোর ব্যবস্থা থাকছে সিইএসসি-র স্টলে।

সুধাংশুবাবু জানিয়েছেন, ইলেকট্রিক চার্জে চলা বাসে দর্শকরা মেলায় আসতে পারবেন বলে আশা করা যাচ্ছে।

বইমেলার যাত্রীদের কাছ থেকে যাতে অটোরিকশয় যথেচ্ছ ভাড়া না নেওয়া হয়, সেজন্যও উদ্যোগ নিয়েছে গিল্ড। গতবার অটোতে বেশি ভাড়া নেওয়া নিয়ে বহু অভিযোগ গিল্ডের কাছেও এসেছিল। এবার অটো অপারেটরদের সংগঠনের সঙ্গে ভাড়া নিয়ে ইতিমধ্যে আলোচনা করেছে গিল্ড। বইমেলার দর্শকদের কাছ থেকে অত্যাধিক বেশি ভাড়া না নেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়। সুধাংশুবাবুর দাবি, অপারেটরদের পক্ষ থেকে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে, স্বাভাবিক সময়ের ভাড়া নেওয়া হবে। পুলিসের সঙ্গে আলোচনা করে বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে মেলায় আসার অটো ভাড়া নির্দিষ্ট করা হচ্ছে। অটো সহ বিভিন্ন জায়গায় ওই ভাড়া লিখে রাখাও হবে।

এবারের বইমেলায় আরও কয়েকটি নতুন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। কয়েকটি বৃদ্ধাবাসকে নিজস্ব লাইব্রেরি করার জন্য বই উপহার দেবে গিল্ড। বইপ্রেমীদের জন্য চারদিন বাম্পার লটারি হবে মেলায়। ওই চারদিনের প্রতিদিন চারজন লটারি জিতবেন। বিজেতারা প্রত্যেকে ২৫ হাজার টাকার বই কেনার কুপন উপহার পাবেন। এছাড়াও প্রতিদিন লটারিতে ১৫ জন বিজেতা এক হাজার টাকার বুক কুপন উপহার পাবেন। বই মেলার জন্য বিশেষ চালু হওয়া অ্যাপটি-কে এবার আরও উন্নত করা হচ্ছে। ওই অ্যাপের মাধ্যমে কোনও স্টলের অবস্থান সহ মেলা সম্পর্কিত তথ্য পাওয়া যাবে।

আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলা কলকাতা বইমেলায় প্রায় ৬০০টি স্টল থাকবে। ২০০টি লিটল ম্যাগাজিন স্টলও হবে। বর্তমান-এর প্রয়াত সম্পাদক শুভা দত্তের নামে মিডিয়া কর্নার ও প্রয়াত কল্পবিজ্ঞান লেখক অদ্রীশ বর্ধনের নামে মুক্তমঞ্চের নামকরণ করা হচ্ছে। এবার থিম কান্ট্রি রাশিয়া হওয়ায় মূল তোরণটি রাশিয়ার বিখ্যাত বলশয় থিয়েটারের আদলে হচ্ছে। 

রাশিয়া সরকারের প্রতিনিধি ও ভারতে নিযুক্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত ও সে দেশের এক সাহিত্যিক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে থাকছেন। বইমেলার সঙ্গে কলকাতা লিটারেচার ফেস্টিভ্যাল হবে ৬ থেকে ৮ ফেব্রুয়ারি।

খবর ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম বর্তমান

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ