কলকাতায় বাংলাদেশ বইমেলা যেন মিলনমেলা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ০৭ নভেম্বর ২০১৯, ১১:২০

দেশের বাইরেও বাংলাদেশের বইয়ের প্রতি পাঠকদের যে ব্যাপক আগ্রহ ভালোবাসা আছে তাই যেন উঠে এসেছে কলকাতায় বাংলাদেশ বইমেলায়। বুধবার ষষ্ঠ দিনে বইমেলা যেন দুই বাংলার লেখক পাঠকের মিলন মেলায় রূপ নেয়। 

এ প্রসঙ্গে কলিকাতার নিযুক্ত বাংলাদেশের উপ-হাইকমিশনার তৌফিক হাসান বলেন, ‘আমাদের এ মেলার মূল উদ্দেশ্য শুধু বই বিক্রি-ই নয়, দুই দেশের (ভারত-বাংলাদেশ) মধ্যে সম্পর্ক আরও জোরদার করাও।’

তিনি বলেন, আমরা গত আট বছর ধরে মেলার আয়োজন করে চলেছি, এখনই মেলা বেশ জনপ্রিয় হয়েছে এবং এর ধারাবাহিকতায় আজকের মেলাটি উদ্দীপনা আর উৎসবে পরিণত হয়েছে।

মেলায় আসা এক ক্রেতা বলেন, এখানকার বাংলা সাহিত্যের আনেক পাঠক প্রতি বছর মোহরকুঞ্জের এই গ্রন্থ উৎসবের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে থাকে। মেলাটি আর এক বছর পরেই আন্তর্জাতিক বইমেলার মূলে ঢুকে পড়বে বলে তার বিশ্বাস।

উপ-হাইকমিশনার তৌফিক হাসান বলেন, বাংলাদেশের আয়োজনে ২০১০ সাল থেকে কোলকাতা গগনেন্দ্র চত্বরে এ মেলার আয়োজন শুরু হয়, পরে রবীনন্দ্র সদনের কাছে চারক একাডেমির বিপরীতে মোহরকুঞ্জে স্থানাান্তরিত হয়।

কবিতা পাঠ আর সাংস্কৃতিক আনুষ্ঠানের পাশাপাশি আজকের আয়োজিত সেমিনারের বিষয়বস্তু ছিল ‘সমাজ বদলে সংবাদ পত্রের ভূমিকা’। মেলায় বুধবার আরও ৫টি নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে।

কলকাতার মোহরকুঞ্জে গত ১ নভেম্বর থেকে শুরু হয়েছে ১০ দিনব্যাপী বাংলাদেশ বইমেলা। বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এদিন আনুষ্ঠানিকভাবে এ মেলার উদ্বোধন করেন।

বাংলাদেশ রপ্তানি ব্যুরো এবং বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির সহায়তায় ডেপুটি হাইকমিশন কলকাতা এ মেলার আয়োজন করে। আগামী ১০ নভেম্বর পর্যন্ত এ মেলা চলবে।
খবর বাসস

এবিএন/সাদিক/জসিম

এই বিভাগের আরো সংবাদ