ছুটির দিনে জমজমাট বইমেলা

  অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৬:০৮

অমর একুশে গ্রন্থ মেলা দেখতে দেখতে এবারের বইমেলার অর্ধেক দিন তো চলেই গেল। তবে এবার বইমেলা অন্যান্যবারের চেয়ে আরও আকর্ষণীয় ও বর্ণাঢ্য হয়ে উঠেছে। বইয়ের স্টল ও প্যাভিলিয়ন সেজেছে আন্তর্জাতিক আবহে। মেলায় যারাই নতুন আসছেন তারাই মেলার নান্দনিক পরিবেশ দেখে অবাক হচ্ছেন।

গতকাল ১৫তম দিনে উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করছিল বইমেলায়। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত পাঠক ও দর্শনার্থীদের ভীর লক্ষ্য করা যায়। কেউ কেউ যেন ভাবতেই পারছেন না এটা আমাদের সেই বইমেলা। যার সূচনা হয়েছিল বাংলা একাডমির আঙিনায় নরম ঘাসের ওপর চট বিছিয়ে। কেউ বা আসছে তার প্রেমিক এর সাথে কেউ বা আসছে তার পরিবারের সাথে। কেউ কিনছে বই কেউ তুলছে সেলফি এমন একটি ছুটির দিনের মাধ্যমে পার করেছে বইমেলা।

কথা হয় বইমেলায় ঘুরতে আসা জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয় এর শিক্ষার্থী পিংকির সাথে তিনি জানান, আমার প্রিয় লেখক আর জে উদয়, তার প্রকাশিত ভৌতিক বইটি নেওয়ার জন্য আমি মেলায় এসেছি। মেলায় এসে আমি অবাক হয়ে গেছি তার সাথে দেখা হয়ে গেল। তার হাত থেকে আমি বইটি নিলাম।

অন্যান্যবারের চেয়ে এবারের বই মেলা টি আকর্ষনীয় এবং একটু অন্যরকম আমি দেখে আশ্চর্য হয়ে গেছি এমনটি জানালেন, ছুটির দিনে বইমেলায় ঘুড়তে আসা ইঞ্জিনিয়ার আরিফুল ইসলাম সোহাগ।

গতকাল শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিনে বইমেলায় বিপুল সংখ্যক ক্রেতা দর্শকের সমাগম হয়েছিল। বিভিন্ন প্রকাশনা সংস্থার কর্মকর্তা ও বিক্রয় প্রতিনিধিদের বক্তব্য, গতকাল বইমেলায় বইয়ের বিক্রি ছিল বেশ আশাব্যঞ্জক। প্রায় প্রতিটি স্টল ও প্যাভিলিয়নে ভীড় করে ক্রেতারা বই কিনেছেন। বাংলা একাডেমির বিক্রয় কেন্দ্রে ভীড় ছিল বিশেষ ভাবে উল্লেখ করার মতো।

এবার বইমেলায় ‘লেখক বলছি’ নামে একটি বিশেষ অনুষ্ঠান ইতিমধ্যে ব্যাপক আলোচিত হয়ে উঠেছে। ওই অনুষ্ঠানে প্রতিদিন নবীণ প্রবীণ কবি, লেখকবৃন্দ তাদের নতুন বই নিয়ে হাজির হচ্ছেন। নিজেরা বই নিয়ে কথা বলছেন। পাঠকের প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন। বাংলা একাডেমির এই নতুন উদ্যোগের আরও প্রসার হোক এই কামনা রইল।


এবিএন/মারুফ সরকার/জসিম/তোহা

এই বিভাগের আরো সংবাদ