শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১২ ফাল্গুন ১৪২৫
logo
feb18  

তৈমুর আলমকে গ্রেফতারে খালেদা জিয়ার নিন্দা

তৈমুর আলমকে গ্রেফতারে খালেদা জিয়ার নিন্দা
ঢাকা, ২৩ জানুয়ারি, এবিনিউজ : বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য এ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার এবং জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ইয়াসিন আলীকে গ্রেফতারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বেগম খালেদা জিয়া। আজ মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন তিনি।
 
বিবৃতিতে খালেদা জিয়া বলেন, সরকার সারাদেশকে গ্রাস বরতে সর্বনাশা নীতি অবলম্বন করেছে। এই নীতির তাৎপর্য হচ্ছে হুকুমবাদ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে বিরোধী দল ও ভিন্ন মতের অস্তিত্বের চিরদিনের জন্য অবসান ঘটানো। দিন যতোই অতিবাহিত হচ্ছে ভোটারবিহীন সরকারের হিংস্রতার মাত্রা ততোই ভয়াবহ রুপ ধারণ করছে।
 
বেগম জিয়া বলেন, এই সরকার বিরোধীদল দমনে হয়রানী, জুলুম-নির্যাতন, মিথ্যা মামলা, গ্রেফতার ইত্যাদিকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে। ভয় ও আতঙ্ক সৃষ্টি করা সরকারের জন্য জরুরী হয়ে পড়েছে এজন্য যে, মানুষের প্রতিবাদী স্রোত যেন ক্ষমতার মসনদের দিকে ধেয়ে না আসে। এই লক্ষ্য পূরণে তৈমুর আলম খন্দকার এর ন্যায় একজন প্রাজ্ঞ আইনজীবী ও রাজনীতিবিদকে আজ বিনা কারণে গ্রেফতার করা হয়েছে। তারুণ্যের শক্তিকে প্রতিহত করার জন্য ইয়াসিন আলী’র মতো যুবকদেরকেও কারাগারে দীর্ঘদিন ধরে আটকে রাখা হয়েছে। মিথ্যা অভিযোগে বিরোধী দলের নেকাকর্মীদের আটক গণতন্ত্রকে চিরদিনের জন্য নিরুদ্দেশ করে রাখারই মহাপরিকল্পনা। বিরোধী দল সংবিধান স্বীকৃত সকল রাজনৈতিক অধিকার থেকে এখন বঞ্চিত। দেশে গণতন্ত্রের লেশমাত্র চিহ্ন নেই। মৌলিক ও মানবাধিকার বর্তমান সরকার আগেই ভুলুন্ঠিত করেছে। গণমাধ্যম এখন পরাধীন। আইন-আদালতও এখন শাসকগোষ্ঠীর মুখাপেক্ষী। শাসকগোষ্ঠী দেশে এক শ্বাসরুদ্ধকর অবস্থার সৃষ্টি করেছে। রাজনৈতিক কর্মী-নেতারা ছাড়াও দেশের কোন মানুষই এখন নিজেদের নিরাপদ বোধ করছেন না।
 
বেগম খালেদা জিয়া বলেন, এ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার এবং স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক ইয়াসিন আলীসহ সারাদেশে প্রতিদিন যে গণগ্রেফতারের ঘটনা ঘটছে-তা অবিলম্বে বন্ধ করার আহবান জানচ্ছিছ এবং অবিলম্বে গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নি:শর্ত মুক্তির জোর দাবি করছি।
 
অপর এক বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বরেণ্য আইনজীবী ও বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য এ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার, জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ইয়াসিন আলী, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ৩১ নং ওয়ার্ড বিএনপি’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান টিপু এবং নেত্রকোণা জেলাধীন খালিয়াজুরী উপজেলা বিএনপি সভাপতি আব্দুর রউফ স্বাধীনকে গ্রেফতারের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, ২০০৯ সাল থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে দেশে যে ভয়ঙ্কর দু:শাসন চলছে তারই অংশ হিসেবে এ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার, ইয়াসিন আলী, মাহবুবুর রহমান টিপু এবং আব্দুর রউফ স্বাধীনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জনগণের সম্মিলিত শক্তিতে বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের ওপর এই নির্যাতন ও বর্তমান ভয়াবহ দু:শাসনের অবসান ঘটবেই। বিএনপি মহাসচিব বলেন, অবিলম্বে গ্রেফতারকৃত নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নি:শর্ত মুক্তির জোর দাবি জানান।
 
এবিএন/মমিন/জসিম

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত