বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ৯ ফাল্গুন ১৪২৫
logo
feb18  

ভুট্টার পুষ্টিগুণ

ভুট্টার পুষ্টিগুণ
ঢাকা, ২২ জানুয়ারি, এবিনিউজ : ভুট্টা বাড়িতে পোড়ানো হোক, কী রাস্তার ধারের দোকানে কিছু যায় আসে না! একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে, ভুট্টা যেখানেই সেঁকা হোক না, এটা খেলেই শরীরের মঙ্গল হতে শুরু করে। কারণ এই প্রকৃতিক উপাদানটির শরীরে ঠাসা রয়েছে প্রচুর মাত্রায় ভিটামিন এ, বি, ইসহ নানাবিধ পুষ্টিকর উপাদান।
 
সেই সঙ্গে রয়েছে ফাইবার, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সহ আরও সব উপকারী মিনারেল, যা নানাভাবে শরীরের উপকারে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।
 
শরীর এবং মস্তিষ্কের গঠনে সাহায্য করে : ভুট্টায় উপস্থিত ভিটামিন বি, থিয়ামিন এবং নিয়াসিন ব্রেন পাওয়ার বাড়ানোর পাশাপাশি ব্রেন সেলের গ্রোথেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই তো এই প্রকৃতিক উপাদানটি নিয়মিত খাওয়ার অভ্য়াস করলে কোনো ধরনের ব্রেন ডিজিজে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা একেবারে কমে যায়। শুধু তাই নয়, এই পুষ্টিকর উপাদানগুলি শরীরকে ভেতর থেকে শক্তিশালী করে তুলতেও সাহায্য করে। 
 
খনিজের ঘাটতি দূর করে : শরীরকে সচল এবং রোগমুক্ত রাখতে যেসব খনিজের প্রয়োজন পরে, তার বেশিরভাগই মজুদ রয়েছে ভুট্টায়। যেমন- ফসফরাস, ম্যাগনেসিয়াম, মেঙ্গানিজ, জিঙ্ক, আয়রন এবং কপার প্রভৃতি। সেই সঙ্গে রয়েছে সেলেনিয়ামের মতো উপকারী খনিজও। 
 
ওজন বাড়ায় : ১০০ গ্রাম ভুট্টায় কম-বেশি প্রায় ৩৪২ ক্যালরি থাকে। তাই তো ওজন বৃদ্ধির ইচ্ছা থাকলে রোজের ডায়েটে ভুট্টার অন্তর্ভুক্তি ঘটাতেই পরেন। এবার ভুঝেছেন তো বডি বিল্ডাররা কেন এত ভুট্টা খেতে ভালোবাসেন! ভুট্টায় থাকা কার্বোহাইড্রেড, এনার্জির ঘাটতি দূর করে শরীরকে চনমনে করে তুলতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।
 
কনস্টিপেশনের মতো সমস্যা দূর করে : ভুট্টার ভেতরে উপস্থিত ফাইবার শরীরে প্রবেশ করার পর একদিকে যেমন পাকস্থলির কর্মক্ষমতা বাড়ায়, তেমনি শরীরের বর্জ্যের পরিমাণ বাড়িয়ে কোষ্ঠকাঠিন্য মতো সমস্যা কমাতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। সেই সঙ্গে বদ-হজমের প্রকোপ কমাতেও বিশেষ ভূমিকা নেয়। প্রসঙ্গত, ফাইবার, নানাবিধ ক্যান্সারকে দূরে রাখতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে।
 
ক্যানসার প্রতিরোধে সাহায্য করে : বর্তমান যেহারে ক্যানসার রোগের প্রকাপ বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে ভুট্টা খাওয়া প্রয়োজনও বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। আসলে ভুট্টার শরীরে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আমাদের দেহের অন্দরে প্রবেশ করার পর ক্ষতিকর টক্সিক উপাদানদের বের করে দিতে শুরু করে। ফলে ক্যান্সার সেলের জন্ম নেওয়ার আশঙ্কা হ্রাস পায়। 
 
হার্টের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটায় : বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, ভুট্টা থেকে তৈরি কর্ন অয়েল খাওয়া শুরু করলে শরীরে খারাপ কোলেস্টেরেলর মাত্রা কমাতে শুরু করে। সেই সঙ্গে তেলটিতে উপস্থিত ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড হার্টের কর্মক্ষমতা বাড়াতে বিশেষ ভূমিকা নেয়। ফলে হার্টের কোনও ধরনের ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা একেবারে কমে যায়।
 
অ্যানিমিয়া রোগকে দূরে রাখে : শরীরে আয়রনের ঘাটতি দূর করার পাশাপাশি লহিত রক্ত কণিকার উৎপাদন বাড়িয়ে অ্যানিমিয়া রোগের প্রকোপ কমাতে ভুট্টা বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। সেই সঙ্গে কোষের গঠনেও সাহায্য করে। তথ্যসূত্র : ইন্টারনেট
 
এবিএন/সাদিক/জসিম/এসএ

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত