বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ৯ ফাল্গুন ১৪২৫
logo
feb18  
  • হোম
  • সারাদেশ
  • রাণীনগরে পুলিশের বিশেষ অভিযানে দুই মাসে গ্রেফতার ৭৭

রাণীনগরে পুলিশের বিশেষ অভিযানে দুই মাসে গ্রেফতার ৭৭

রাণীনগরে পুলিশের বিশেষ অভিযানে দুই মাসে গ্রেফতার ৭৭

রাণীনগর (নওগাঁ), ১৭ জানুয়ারি, এবিনিউজ : নওগাঁর রাণীনগর থানাপুলিশের বিশেষ অভিযানে সাজাপ্রাপ্ত পালাতক আসামী সহ বিভিন্ন ঘটনায় গত দুই মাসে ৭৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। হঠাৎ করে পুলিশী অভিযান জোরদার করায় রাণীনগর উপজেলায় আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি বিগত দিনের চেয়ে অনেক ভাল পর্যায়ে রয়েছে। তবে এলাকাবাসির দাবি এর ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে হলে এই থানায় জনবল বৃদ্ধি সহ নতুন একটি পিকাপ ভ্যান দেওয়া হলে রাতের টহল ব্যবস্থা বৃদ্ধি করা গেলে বিশেষ কোন সংগঠনের সন্ত্রাসীরা আর মাথা চারা দিতে পারবে না।

নবাগত অফিসার ইনচার্জ এএসএম সিদ্দিকুর রহমান রাণীনগর থানায় যোগদানের পর থেকেই নতুন কর্ম-কৌশলে রাণীনগর বাসির শান্তি ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চিহিৃত দাগী সন্ত্রাসী ও মাদকের বিরুদ্ধে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করায় বর্তমানে রাণীনগরে আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি উন্নতী হয়েছে।

জানা গেছে, নওগাঁ জেলার এক সময়ের রক্তাক্ত জনপদ হিসেবে খ্যাত রাণীনগর উপজেলা এখন শান্তি আর উন্নয়নের জনপদ হিসেবে পরিনিত হয়েছে। ২০০৮ইং সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনিত প্রার্থী মো: ইসরাফিল আলম এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই শুরু হয় বিশেষ সংগঠনের সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে স্থানীয় জনতার সহযোগীতায় আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী নানান কায়দায় অভিযান পরিচালনা করায় অল্প সময়ের মধ্যেই রাণীনগরে সন্ত্রাসীরা কণঠাসা হয়ে পড়লে ধীরে ধীরে এই এই অশান্তির জনপদ শান্তির জনপদে উন্নত হতে থাকে।

সেই সময় থেকেই স্থানীয় সংসদ সদস্য জনগনের জান-মালের নিরাপত্তার জন্য কঠোর ভূমিকা পালন করায় বিশেষ কোন সন্ত্রাসী সংগঠনের হাতে আর একটি মানুষ প্রাণ হারায়নি।

বর্তমান রাণীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ যোগদানের পরে এক বরণ অনুষ্ঠানে এমপি ইসরাফিল আলম বলেছিলেন, পুলিশ বাহিনীর কাছে আমার একটায় চাওয়া উপজেলাবাসি যাতে শান্তিতে নিরাপদে স্বাভাবিক জীবন-যাপন করতে পারে।

এক্ষেত্রে কারও সাথে আপনারা আপোষ করবেন না। বর্তমানে রাণীনগর উপজেলায় বিগত সময়ের তুলনায় আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি উন্নতির দিকে অগ্রসর হচ্ছে। এর আগে এলাকায় চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, খুনসহ নানা ধরণের অপরাধ মূলক কর্মকান্ড সংঘটিত হলেও বর্তমানে নতুন অফিসার ইনচার্জ হিসেবে এএসএম সিদ্দিকুর রহমান রাণীনগর থানায় যোগদান করার পর থেকে দক্ষতার সাথে কর্ম-কৌশলের মাধ্যমে আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রেখেছে।

গত দুই মাসে অব্যাহত জোড়ালো অভিযানে মাদক দ্রব্য উদ্ধার এবং সাজাপ্রাপ্ত পলাতক ২ জন আসামী সহ বিভিন্ন ঘটনায় মোট ৭৭ জনকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করা হয়। উদ্ধার করা হয়েছে হেরোইন, ইয়াবা, গাঁজা ও এ্যাম্পল সহ বেশ কিছু মাদক দ্রব্য। গ্রেফতার করা হয়েছে এলাকার আলোচিত মাদক ব্যবসায়ীদের। গত ২১ ডিসেম্বর থেকে ১৭ জানুয়ারী পর্যন্ত কয়েকটি মাদক মামলা সহ মাত্র ৫ টি মামলা রুজু করা হয়েছে।

থানাপুলিশের তৎপরতায় প্রায় শতাধিক আসামী আদালত থেকে জামিন নিয়েছেন। গত দুই মাসে এলাকায় কোন চুরি, ডাকাতি কিম্বা রাহাজানি অথবা খুনের মতো বড় ধরণের কোন অপরাধ কর্মকান্ড সংঘটিত হয়নি। গত বছর এই সময়ে আমন ধান কাটার পর মাঠ ফাঁকা ও শুকনা থাকায় এলাকায় চুরি, ডাকাতিসহ ছিনতাইয়ের মতো অহরহ ঘটনা ঘটলেও বর্তমানে থানাপুলিশের জোরালো তৎপরতা, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও জনগনের সার্বিক সহযোগিতায় এবং সচেতনতার কারণে বর্তমানে এলাকার আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি খুব ভাল রয়েছে।

রাণীনগর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম আল-ফারুক জেমস জানান, বিগত সময়ের চাইতে তুলনামূলক ভাবে বর্তমানে আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি ভাল রয়েছে।

রাণীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ এএসএম সিদ্দিকুর রহমান জানান, সন্ত্রাস ও মাদকের বিরুদ্ধে থানাপুলিশের বিশেষ অভিযান অব্যহত, স্থাণীয় জনপ্রতিনিধি ও জনতার সহযোগীতা ও সচেতনতার কারণে এলাকার আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখা সম্ভব হয়েছে। জনগনের আরো সার্বিক সহযোগিতা পেলে এলাকা আরো ভাল রাখা সম্ভব হবে বলে তিনি জানান।

এবিএন/এ বাশার (চঞ্চল)/জসিম/রাজ্জাক

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত