logo
বৃহস্পতিবার, ১৮ জানুয়ারি ২০১৮
 
প্রথম পর্বে প্রায় ৪ হাজার বিদেশি

ইজতেমা ময়দানে লাখো মুসল্লির জুমা আদায়

ইজতেমা ময়দানে লাখো মুসল্লির জুমা আদায়

ঢাকা, ১২ জানুয়ারি, এবিনিউজ : দেশ-বিদেশের লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসলমানের উপস্থিতিতে টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে ইজতেমা ময়দানে দেশের বৃহত্তম জুমার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শুক্রবার দুপুর দেড়টায় বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে এ জুমার নামাজে ইমামতি করেন কাকরাইল মসজিদের ইমাম হাফেজ মাওলানা জুবায়ের।

তাবলিগ জামাতের তিন দিনব্যাপী এই বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নিতে প্রথম দিন শুক্রবার সকাল পর্যন্ত ৭৯টি দেশের ৩ হাজার ৯১৯ জন মুসল্লি ইজতেমা মাঠে পৌঁছেছেন। বাদ ফজর জর্ডানের মাওলানা শেখ ওমর খতিবের বয়ানের মধ্য দিয়ে বিশ্ব ইজতেমার মূল কাজ শুরু হয়। তার বয়ান বাংলায় তরজমা করেন বাংলাদেশের মুরব্বি আব্দুল মতিন। প্রথমপর্বে দেশের ১৪ জেলার মুসল্লিদের পাশাপাশি ভারত, পাকিস্থান, ইরান, ইরাক, জর্ডানসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মুসল্লিরা ইজতেমায় অংশ নিচ্ছেন।

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের টঙ্গী স্টেশন রোড পর্যন্ত মুসল্লিরা জায়নামাজ, পাটি, কাগজ ও পলিথিন বিছিয়ে নামাজ আদায় করেন।

এ সময় বিভিন্ন যানবাহন থেকে নেমে যাত্রীদেরও ইজতেমা ময়দানের প্রবেশ মুখে ওজুখানা থেকে ওজু করে নামাজে শরিক হতে দেখা যায়।

গাজীপুর পুলিশ সুপার কার্যালয়ে বিশেষ শাখার পরিদর্শক (ডিআই-২) মো. মমিনুল ইসলাম জানান, বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে অংশ নিতে শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত বিশ্বের ৭৯টি দেশের ৩ হাজার ৯১৯ জন মুসল্লি ইজতেমা ময়দানে এসে পৌঁছেছেন।

বিশ্ব ইজতেমা মাঠের মুরব্বি প্রকৌশলী গিয়াস উদ্দিন জানান, ভিআইপিদের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী আকম মোজাম্মেল হক, গাজীপুর-২ আসনের এমপি জাহিদ আহসান রাসেল জুমার নামাজে শরীক হয়েছেন।

এর আগে বাদ ফজর আম বয়ানের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয় ৫৩তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। তীব্র ঠাণ্ডা কনকনে শীত উপেক্ষা করে মুসল্লিরা বয়ান, তাশকিল, তাসবিহ-তাহলিলে কাটাচ্ছেন। তবে তীব্র শীতের কারণে বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া মুসল্লিদের প্যান্ডেলের বাইরে যেতে দেখা যায়নি। শীত বস্ত্র মুড়ি দিয়ে ইজতেমায়ি কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করেন তারা।

১৪ জানুয়ারি দুপুরে আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে প্রথম পর্বের বিশ্ব ইজতেমা শেষ হবে। এরপর চারদিন বিরতি দিয়ে আগামী ১৯ জানুয়ারি শুরু হবে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব।

এবারের বিশ্ব ইজতেমায় মাওলানা সাদসহ দুই পক্ষের প্রধান দুই মুরুব্বি যোগ দিচ্ছেন না। তবে তাদের প্রতিনিধিরা ইজতেমায় অংশ নিচ্ছেন। টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমা সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে মাওলানা সাদ এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে কাকরাইল মসজিদ ও ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার সূত্রে জানা গেছে।

ইজতেমায় অংশ নিতে বুধবার থেকেই তুরাগতীরে জড়ো হতে থাকেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। তবে ইজতেমায় অংশ নেওয়ার জন্য বিদেশি মুসল্লিদের কেউ কেউ দু-একদিন আগেই ইজতেমাস্থলে এসে পৌঁছেছেন। তারা দলে দলে ময়দানে এসে খুঁজে নিচ্ছে যার যার খিত্তা। মুসল্লিদের আগমনে পুরো টঙ্গী নগরী এখন টুপি-পাঞ্জাবি পড়া মানুষের নগরে পরিণত হয়েছে।

এবিএন/জনি/জসিম/জেডি

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত