logo
শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০১৭
 

গৌণতন্ত্রের খবর-১

গৌণতন্ত্রের খবর-১

মোস্তফা ফিরোজ, ১৭ অক্টোবর, এবিনিউজ : মাননীয় সিইসি আপনাকে ধন্যবাদ। প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের বহুদলীয় গনতন্ত্রের স্বাদ পেয়ে আপনি উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন। বিএনপি নেতাদের সামনে পেয়ে আপনি এতটাই বিচলিত হয়েছেন যে, আপনাকে ২০০১ সালে যুগ্ম সচিব থাকা অবস্থায় বাধ্যতামূলক অবসরে যাবার কষ্টটুকু ভুলে গেছেন। অথচ এই অবসরের কারনে আপনি অতিরিক্ত সচিব ও সচিব হতে পারলেন না। যদি অবসরে না যেতেন আর বিএনপি যদি পাওয়ারে থাকতো তাহলে আপনি আরো সচিব পর্যন্ত তাদের সেবা দিতে পারতেন। অবশ্য শেখ হাসিনা সেটা পুষিয়ে দিয়েছেন। তার সরকারের সময়ে আদালতের রায়ে আপনি সচিব মর্যাদায় সব সুবিধা নিয়ে অবসরে গেছেন। অনেকটা দুধের স্বাদ ঘোলে মেটানো আর কি।

তারপর ১৭ বছর পর একবারে সিইসি। এটা কি কম ভাগ্য! কতো শত বাঘা বাঘা নাম আসলো সিইসি পদের জন্য। কেউ ভুলেও আপনার কথা কল্পনা করলো না। সেখানে শেষ পর্যন্ত আপনি। ভেবে দেখেছেন একবার? না ভাবার দরকার নেই। আপনি এখন সব কিছুর উপরে। যেটা ভালো মনে করবেন সেটাই বলবেন। আপনার হাতেই এখন দেশের গণতন্ত্র, নির্বাচন। তাই আপনি জিয়াউর রহমান ও তার স্ত্রী খালেদা জিয়ার আমলের প্রশংসা করেছেন দেশ ও জাতির স্বার্থে।

নানা কর্মসূচির সাথে ওই সময়ে ‘প্রশংসিত র‌্যাব’ আর ‘কার্যকর দুদকের’ কথাও উল্লেখ করতে ভোলেননি আপনি। আপনার সৎ সাহসের প্রশংসা করতেই হবে। কেননা, আপনি মুক্তিযোদ্ধা কর্মকর্তা হবার কারণে ভিকটিম হয়েছিলেন বলে অনেকের ধারনা। বহুদলীয় গণতন্ত্রের মাধ্যমে দেশে মুক্তিযুদ্ধের বিরোধী নানা শক্তি রাজনীতি করার সুযোগ পায় বলে একটা ভ্রান্ত ধারনার প্রচার আছে। পরে ওই রাজনীতির পথ ধরে সেই শক্তি ক্ষমতায় আসে বলেও কেউ কেউ বলেন।

এখন দেখা যাচ্ছে, মুক্তিযোদ্ধা কর্মকর্তা হবার কারনে আপনার ভিকটিম হওয়া, বহুদলীয় গণতন্ত্রের কারনে রাজাকারদের রাজনীতি করা ও ক্ষমতায় আসা সবই অপপ্রচার। আপনি সব কিছু ভ্রান্ত প্রমাণ করেছেন। স্বাধীনতা আর স্বাধীনতা বিরোধী শক্তির ব্যবধান দূর করে আবার বহুদলীয় গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার জন্য আপনি যদি পুনরায় মহতী উদ্যোগ নেন তাহলে জাতি সত্যি সত্যি আলোর দেখা পাবে। জানিনা আওয়ামী লীগের সাথে সংলাপে আপনি তাদেরকে কি ভাষায় প্রশংসা করবেন। কিন্তু বিএনপি নেতাদের সামনে আপনি যেসব কথা বলেছেন তার জন্য সাধুবাদ জানাই আপনাকে।

লেখক: বার্তা প্রধান, বাংলাভিশন

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত