logo
সোমবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৭
 

ঘরের মাঠেই অবসর নিচ্ছেন নেহরা

ঘরের মাঠেই অবসর নিচ্ছেন নেহরা

ঢাকা, ১২ অক্টোবর, এবিনিউজ : ১৯৯৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে শ্রীলংকার বিপক্ষে টেস্ট দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আসেন আশিস নেহরা। মাঝে কেটে গেছে ১৮ বছর। বয়সও হয়ে গেছে ৩৮। ফর্মটা একেবারে খারাপ নয়। নইলে কি আর এই বয়সে জাতীয় দলে ডাক পান ফের? তবু বুধবার জানিয়ে দিলেন সব ধরণের ক্রিকেট থেকে অবসর নিচ্ছেন কদিন পরই। ১ নভেম্বর দিল্লিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ভারত টি-টুয়েন্টি ম্যাচে মুখোমুখি হবে। ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়ামে সেই ম্যাচটিই হবে দিল্লির ঘরের ছেলে নেহরার শেষ ক্রিকেট ম্যাচ।

অনেক খেলোয়াড়েরই সুযোগ হয় না আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর ঘোষণার। মাঠ থেকে বিদায় নেওয়ার। তার ওপর নিজের ঘরের মাটিতে ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচ খেলা? এটা তো স্বপ্নের মতোই ব্যাপার। দিল্লিতে নিজের ঘরের মাঠে অবসর নেওয়ার সুযোগ নেহরার জন্যও তাই অনেক বড় কিছু, 'এর চেয়ে বড় কিছু হতে পারে না। ঘরের মাঠে অবসর নেয়া অনেক বড় কিছু।' অবসর নিয়ে কোনরকম প্রশ্ন ওঠার সুযোগ দিতে চান না তিনি, 'আমি পারফরম্যান্সের শীর্ষে থাকতে থাকতেই অবসর নিতে চাই। কেন অবসর নিচ্ছেন না এই প্রশ্নের চেয়ে কেন নিচ্ছেন এই প্রশ্ন ওঠা অনেক ভাল।' অবসর নেয়ার পর যে কোন ধরণের ক্রিকেটই খেলবেন না তা পরিষ্কার হয়েছে নেহরার এই কথায়, 'আমি সিদ্ধান্ত নেয়ার পর তা নড়চড় হয় না। অবসর নিলে আমি আইপিএলও খেলব না।'

ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই) সূত্রমতে নেহরা জাতীয় দলের কোচ রবি শাস্ত্রী ও অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে এই সিদ্ধান্তের কথা আগেই জানিয়েছেন। ভারতীয় দলে নতুন পেসাররা খুব ভাল করছেন। তাদের জায়গা ছেড়ে দেয়ার জন্যই নেহরা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, 'এই সিরিজের দলে ডাক পাওয়ার পর আমি বিরাট ও কোচকে বলেছি যে ভুবি (ভুবনেশ্বর কুমার) এবং (জাসপ্রিত) বুমরাহ খুব ভাল বোলিং করছে। এটাই আমার বিদায় নেয়ার উপযুক্ত সময়।' অস্ট্রেলিয়ার সাথে টি-টুয়েন্টি সিরিজের দলে থাকলেও খেলার সুযোগ হয়নি প্রথম দুই ম্যাচে। বিসিসিআইয়ের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন এই সিরিজেই সম্ভাবনা ছিল নেহরার অবসর নেওয়ার, 'আশিস চেয়েছেন ভুবনেশ্বর ও বুমরাহ নিয়মিত খেলুক। নভেম্বর মাসে ফিরোজ শাহ কোটলায় কোন ম্যাচ না থাকলে অস্ট্রেলিয়ার সাথে তৃতীয় টি-টুয়েন্টি ম্যাচ খেলেই অবসর নিতেন তিনি।'

মোহাম্মদ আজহারউদ্দিনের অধিনায়কত্বে অভিষেক নেহরার। তারপর ১৯ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে খুব খেলেছেন তা নয়। ১৭টি টেস্টে নিয়েছেন ৪৪ উইকেট। ১২০ ওয়ানডেতে ১৫৭ উইকেট। আর ৩৪ উইকেট নিয়েছেন ২৬টি টি-টুয়েন্টি ম্যাচে। শেষ টেস্ট খেলেছেন ২০০৪ সালে, আর শেষ ওয়ানডে ২০১১ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে। কিছুদিন হলো টি-টুয়েন্টি খেলে যাচ্ছিলেন মোটামুটি নিয়মিত। মাঝে ছিলেন না। অস্ট্রেলিয়ার সাথে চলতি তিন ম্যাচের টি-টুয়েন্টি সিরিজেও আছেন দলে। তার অবসরে ভারতীয় ক্রিকেট দলের একটা প্রজন্মের অবসান হবে।

এবিএন/শংকর রায়/জসিম

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত