logo
শনিবার, ২১ অক্টোবর ২০১৭
 

ঘরের যে জিনিসটিতে লুকিয়ে আছে কোটি কোটি জীবাণু!

ঘরের যে জিনিসটিতে লুকিয়ে আছে কোটি কোটি জীবাণু!
ঢাকা, ১১ অক্টোবর, এবিনিউজ : ঘরটাকে ঝকঝকে তকতকে দেখাচ্ছে বটে, কিন্তু আসলে তা কতটা পরিষ্কার- এই চিন্তা অনেকের মাথাতেই আসে। বাসার সবচাইতে ময়লা জায়গা হিসেবে বাথরুমটাকেই সবাই নিয়মিত জীবাণুমুক্ত রাখার চেষ্টা করেন বটে। আসলে কিন্তু বাথরুমের কমোডের চেয়েও ময়লা একটি জিনিস আছে আপনার ঘরে। সেটি হলো আপনার কিচেন স্পঞ্জ! 
 
সায়েন্টিফিক রিপোর্টস জার্নালে প্রকাশিত গবেষণায় ঘরের বিভিন্ন জিনিসে থাকা জীবাণুর পরিমাণ দেখা হয়। তারা দেখেন কিচেন স্পঞ্জে অনেক বেশি জীবাণু থাকে। কারণ তা বেশিরভাগ সময়েই ভেজা থাকে এবং এতে আটকে থাকে অনেকটা খাবার। কিন্তু ঠিক কত ব্যাকটেরিয়া এতে থাকে তা কী আপনি জানেন? একটি স্পঞ্জের প্রতি বর্গ সেন্টিমিটারে ৫৪ বিলিয়ন ব্যাকটেরিয়া থাকে। মানুষের মলেও থাকে মোটামুটি একই পরিমাণ ব্যাকটেরিয়া।
 
ওই গবেষণায় বলা হয়, আমাদের ধারণা টয়লেটে বেশি জীবাণু থাকে, আসলে কিন্তু থাকে কিচেনে। এর কারণ মূলত কিচেন স্পঞ্জে থাকা জীবাণু, যা কিনা পুরো বাসার মাঝে সবচাইতে বেশি জীবাণুর আখড়া।
 
শুধু যে এসব স্পঞ্জ জীবাণুর আখড়া তা নয়, এরা প্রচুর জীবাণু ছড়ায়ও বটে। স্পঞ্জে থাকা সবচাইতে বেশি জীবাণু হলো গড়ৎধীবষষধপবধব ফ্যামিলির। এগুলো হলো এমন ধরনের ব্যাকটেরিয়া যা মূলত মানুষের ত্বকে দেখা যায়। সেখান থেকেই এগুলো স্পঞ্জে আসে, বংশবিস্তার করে এবং একটা সময়ে ক্ষতিকর হয়ে উঠতে পারে। এই স্পঞ্জে পাওয়া বেশ কিছু জীবাণুই এমন যে তা হতে পারে রোগের কারণ। 
 
এসব জীবাণু কীভাবে কমিয়ে আনা যায় সে ব্যাপারেও এই গবেষণায় আলোচনা করা হয়। স্পঞ্জটাকে ফুটিয়ে বা মাইক্রোওয়েভে গরম করে নিলে জীবাণু অনেকটা কমে আসতে দেখা যায়। কিন্তু নিয়মিত এই কাজটি করতে থাকলে আবার একসময় ব্যাকটেরিয়ারা এতে অভ্যস্ত হয়ে যায় এবং তখন আর তারা গরমেও কমে না। তা হলে কী করতে পারেন আপনি? সবচাইতে ভালো উপায় হলো কিছুদিন পর পর পুরনো স্পঞ্জ ফেলে দিয়ে নতুন স্পঞ্জ ব্যবহার করা।
 
এবিএন/সাদিক/জসিম/এসএ

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত