logo
শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৭
 

উইম্বলডনে ইতিহাস গড়লেন ফেদেরার

উইম্বলডনে ইতিহাস গড়লেন ফেদেরার
ঢাকা, ১৭ জুলাই, এবিনিউজ : ক্রোয়েশিয়ার মারিন চিলিচকে সরাসরি সেটে উড়িয়ে দিয়ে উইম্বলডনের রেকর্ড ৮ম শিরোপা জিতেছেন রজার ফেদেরার। উইম্বলডনের ১৪০ বছরের ইতিহাসে ফেদেরার একমাত্র তারকা যিনি ৮টি শিরোপা জিতেছেন। এর মধ্য দিয়ে তিনি পেছনে ফেলেছেন কিংবদন্তি টেনিস তারকা পিট সাম্প্রাস ও উইলিয়াম রেনশকে। তারা দুজন ৭টি করে উইম্বলডন শিরোপা জিতেছিলেন। চিলিচকে হারানোর আগে ৭টি উইম্বলডন শিরোপা নিয়ে তাদের সঙ্গে যৌথভাবে শীর্ষে ছিলেন ফেদেরার। এবার শীর্ষস্থানে একক আধিপত্য স্থাপন করেছেন। উইম্বলডনের ইতিহাসে এখন সর্বোচ্চ শিরোপাজয়ী মাত্র একজন। তিনি রজার ফেদেরার।
 
গতকাল রবিবার ফাইনালে ৬-৩, ৬-১ ও ৬-৪ সেটে চিলিচকে হারিয়ে উইম্বলডনের শিরোপা বগলদাবা করেন ফেড এক্সপ্রেস। দুর্ভাগা বলতে হবে মারিন চিলিচকে। প্রথম সেটেই ইনজুরিতে পড়েন চিলিচ। ইনজুরি নিয়েই বাকি দুটি সেট খেলেন। সে কারণে ফাইনালে যে লড়াইটা হওয়ার কথা ছিল সেটা হয়নি। একতরফাভাবে জিতে যান সুইস তারকা ফেদেরার। এই গ্র্যান্ডস্লাম জয়ের মধ্য দিয়ে উইম্বলডনের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি শিরোপা জেতার রেকর্ড গড়লেন ফেদেরার। 
 
পাশাপাশি সবচেয়ে বেশি বয়সে (৩৫ বছর ১১ মাস ৮ দিন) উইম্বলডন জেতারও রেকর্ড গড়েন। আর নিজের সর্বোচ্চ ১৮টি গ্র্যান্ডস্লামের সংখ্যাটা ১৯-এ উন্নীত করলেন। এর আগে ২০০৩, ২০০৪, ২০০৫, ২০০৬, ২০০৭, ২০০৯ ও ২০১২ সালে উইম্বলডন চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জিতেছিলেন তিনি।
 
চলতি বছর যেন পুনর্জন্ম হলো রজারের। ৫ বছর পর ফের জোড়া গ্র্যান্ড স্ল্যাম এল তার ঝুলিতে। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে নোভাক জকোভিচকে হারিয়ে মৌসুমের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জিতিছিলেন। চোটের জন্য দ্বিতীয় গ্র্যান্ড স্ল্যাম ফরাসি ওপেন থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেন সুইস তারকা।
 
উইম্বলডনে শতভাগ ফিট হয়ে নামতে রোলাঁ গাঁরো থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন ফেডএক্স। এদিন তার রেকর্ড সংখ্যক উইম্বলডন জয়ের সাক্ষী থাকলেন তার ছেলেমেয়েরা। রজারের ইতিহাসের সাক্ষী থাকতে এদিন রয়েল বক্সে হাজির ছিলেন ব্রিটেনের রাজপুত্র উইলিয়ামস এবং তার স্ত্রী ডাচেস অব ক্যামব্রিজ কেট মিডলটন। ছিলেন বলিউড তারকা হিউ গ্র্যান্ট এবং ব্যাডলি কুপার। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ চ্যাম্পিয়ন চেলসির কোচ আন্তোনিও কন্তে দলবল নিয়ে গিয়ে খেলা উপভোগ করেন।
 
এবিএন/সাদিক/জসিম/এসএ

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত