logo
শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৭
 

বাথরুম সতেজ রাখুন সহজেই

বাথরুম সতেজ রাখুন সহজেই
ঢাকা, ১৩ এপ্রিল, এবিনিউজ : বাড়িতে কোনো জায়গায় একটু নোংরা হলে আমরা সবচেয়ে বেশি বিরক্ত হই। আর যদি তা বাথরুম হয়, তাহলে তো কথাই নেই। বাথরুম পরিষ্কার করাটা যে কত কষ্টের একটা কাজ, যাদের বাসায় কাজের মানুষ নেই, তারা সেটা জানেন। আর পরিষ্কার করার কয়েক দিনের মাঝেই যদি ফের ময়লা হয়ে যায়, তখন কষ্ট বেড়ে যায় বহুগুণে। বাথরুমের পরিচ্ছন্নতা বেশ কিছুদিন ধরে রাখার কিছু সহজ কৌশল আছে। 
 
* অনেকের বাথরুম আকারে অনেক ছোট। সে ক্ষেত্রে যতটা সম্ভব সেখানে জিনিসপত্র কম রাখুন। সাবান, শ্যাম্পু ব্যবহার করে যত্রতত্র বাথরুমেই রেখে দিয়ে আসবেন না। আলাদা স্থান নির্ধারণ করুন, যেখানে সাজিয়ে রাখুন। প্রতিবার সাবান ব্যবহার না করে লিকুইড হ্যান্ড ও বডিওয়াশ ব্যবহার করতে পারেন।
 
* স্যাঁতসেঁতে ভেজা বাথরুম  থেকে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়। তাই বাথরুমের মেঝে শুকনো রাখার চেষ্টা করুন। বাথরুম  ব্যবহারের পর দরজা কিছুক্ষণ খোলা রাখুন। দেখবেন, কিছুক্ষণ পর মেঝে শুকিয়ে গেছে। এতে বাথরুম  পরিষ্কার থাকবে বেশি সময় এবং পরে পরিষ্কার করা সহজ হবে।
 
* আপনার বাথরুমে যদি পর্দা থাকে, তা নিয়মিত পরিচ্ছন্ন রাখুন। বেসিনের পাশে হাতগামছাটির ক্ষেত্রেও একই নিয়ম। এক গামছা দীর্ঘদিন ব্যবহার করবেন না। রোজ সকালে একটি পরিচ্ছন্ন গামছা রাখুন।
 
* কখনো কাপড় কিংবা ভেজা গামছা বাথরুমের মেঝেতে ফেলে রাখবেন না। ব্যবহারের তৎক্ষণাৎ তা বারান্দায় কিংবা ছাদে শুকাতে দিন। ফলে কাপড় নষ্ট হবে না এবং দুর্গন্ধ ছড়াবে না।
 
* এয়ারফ্রেশনার কিংবা বিভিন্ন সুগন্ধি ব্যবহার করতে পারেন, যা বাথরুম কে দুর্গন্ধমুক্ত রাখবে। তবে খুব কড়া সুগন্ধি ব্যবহার না করাই উত্তম।
 
* বাথরুমের মেঝে ও দেয়ালের দাগ-ময়লা দূর করতে একটি পরিষ্কার ব্রাশে ব্লিচিং পাউডার নিয়ে দাগের ওপর ঘষুন। অন্তত ৬ মাস পর পর বাথরুম পরিষ্কার করার ব্রাশটি পরিবর্তন করা ভালো।
 
এবিএন/সাদিক/জসিম/এসএ

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত