logo
শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০১৬
 
 
  • হোম
  • সারাদেশ
  • কালীগঞ্জে ইলিশ জব্দ ও জরিমানার প্রতিবাদে দু’টি বাজারে মাছ বিক্রি বন্ধ
কালীগঞ্জে ইলিশ জব্দ ও জরিমানার প্রতিবাদে দু’টি বাজারে মাছ বিক্রি বন্ধ
কালীগঞ্জে ইলিশ জব্দ ও জরিমানার প্রতিবাদে দু’টি বাজারে মাছ বিক্রি বন্ধ
ঝিনাইদহ, ০৭ আগস্ট, এবিনিউজ : ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে জাটকা ইলিশ জব্দ ও মোবাইল কোর্টে মাছ ব্যবসায়ীকে জরিমানা করার প্রতিবাদে কালীগঞ্জে আজ রবিবার সারাদিন দু’টি বাজারে মাছ বিক্রি বন্ধ করে দিয়েছে দেয় মাছ ব্যবসায়ীরা। সকাল থেকে শহরের নতুন ও পুরাতন ২টি বাজারে কোন মাছ বিক্রি হয়নি। ক্রেতারা মাছ কিনতে এসে সবাই ফিরে গেছেন। এছাড়া শহরের ছোট বড় সব মাছের আড়ৎও বন্ধ ছিল। মাছের আড়ৎদাররা খুচরা ব্যবাসায়ীদের কাছে মাছ বিক্রি না করায় শহরে কোন বাজারে মাছ ছিল না। আজ রবিবার সকালে ৫০ হাজার টাকা মূল্যের প্রায় আড়াই মণ জাটকা ইলিশসহ মনিরুল ইসলাম নামের এক মাছ ব্যবসায়ীকে আটক করে থানা পুলিশ। পরে মোবাইল কোর্টে ওই ব্যবসায়ীকে ২ হাজার টাকা জরিমানা ও জব্দকৃত জাটকা ইলিশ মাছ এতিমখানার এতিমদের মধ্যে বন্টন করার নির্দেশ দেন মোবাইল কোর্টের বিচারক ও কালীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মানোয়ার হোসেন মোল্লা।
কালীগঞ্জের নতুন ও পুরাতন বাজারের মাছ ব্যবসায়ী ইসমাইল হোসেন, আব্দুস সবুর, জসিম উদ্দীন, রফি উদ্দীন, আড়ৎদার মাহতাব, দীনবন্ধু, সাহেবআলীসহ একাধিক ব্যবসায়ী জানান, ভোরে পুলিশ তাদের ইলিশ মাছের চালান ধরে নিয়ে যায়। পরে মোবাইল কোর্টে মাছ ব্যবসায়ী মনিরুলকে ২ হাজার টাকা জরিমানা করে এবং মাছ এতিম খানার এতিমদের মধ্যে বন্টন করে দেয় মোবাইল কোর্ট। আমরা এ ঘটনার প্রতিবাদে সারাদিন মাছ বিক্রি বন্ধ করে দিয়ে ধর্মঘট পালন করছি। 
একাধিক ব্যবসায়ী ক্ষোভের সাথে জানান, যেখান থেকে জাটকা মাছ আসছে সেখান থেকে কেন জব্দ করা হয় না। তাদের দাবি, এই মোবাইল কোর্ট শুধু কালীগঞ্জে নয়, সারাদেশে এ অভিযান চালাতে হবে।  
কালীগঞ্জ বৈশাখী মোড়ের হোটেল ব্যবসায়ী আবুল কালাম জানান, তিনি হোটেলের জন্য বাজারে মাছ কিনতে গিয়েছিলেন কিন্তু কোন বাজারেই মাছ পাননি। পুলিশ জাটকা ইলিশ জব্দ করে মোবাইল কোর্টে জরিমান করেছে তাই ব্যবসায়ীরা নাকি মাছ বিক্রি বন্ধ করে ধর্মঘট পালন করছে। 
কালীগঞ্জ মাছ ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আবেদ আলী জানান, পুলিশ মাছ ধরে মোবাইল কোর্ট করেছে। যার কারণে আড়ৎ বন্ধ ছিল। এতে বাজারে কোন মাছ না থাকায় বিক্রি বন্ধ আছে। আগামীকাল থেকে হয়ত মাছ বিক্রি হবে। 
কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আমিনুল ইসলাম জানান, জাটকা ইলিশ বিক্রি আইনগত দ-নীয় অপরাধ। মোবাইল কোর্টে একজনকে জরিমানা এবং জব্দ ইলিশ এতিমদের মধ্যে বিতরণ করেছেন ম্যাজিস্ট্রেট। এখানে মাছ বিক্রি বন্ধ করে দেয়ার কোন মানেই হয় না। 
মোবাইল কোর্টের বিচারক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মানোয়ার হোসেন মোল্লা জানান, জাটকা মাছ ধরা ও বিক্রি করা আইনগত দন্ডনীয় অপরাধ। আইন অনুযায়িই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। তারা যদি বাজারে মাছ বিক্রি বন্ধ করে দেয় সেটা তাদের বোকামি হবে। 
 
এবিএন/রবি-২য়/সারাদেশ/ডেস্ক/যবনিকা/মুস্তাফিজ/ইতি

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত