logo
শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০১৬
 
 
  • হোম
  • সারাদেশ
  • পলাতকদের বিষয়ে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের আদেশ
হবিগঞ্জে চার শিশু হত্যা
পলাতকদের বিষয়ে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের আদেশ
পলাতকদের বিষয়ে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের আদেশ

হবিগঞ্জ, ০৭ আগস্ট, এবিনিউজ : হবিগঞ্জে চার শিশু হত্যা মামলায় পলাতক ৩ আসামীর বিষয়ে সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সাথে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত আটক ২টি সিএনজি অটোরিকশা মালিকের জিম্মায় নেয়ার আবেদন নাকচ করা হয়েছে। আজ রবিবার বিকেল সাড়ে ৪টায় শুনানী শেষে হবিগঞ্জে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মাফরোজা পারভীনের আদালত এ আদেশ দেন। ২২ আগস্ট মামলার পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। শুনানীকালে উক্ত মামলায় কারাগারে আটক আব্দুল আলী বাগাল, তার ছেলে জুয়েল মিয়া ও রুবেল মিয়া, ভাতিজা সাহেদ আলী ওরফে সায়েদ, অন্যতম সহযোগি হাবিবুর রহমান আরজুকে আদালতে হাজির ছিলেন। এ মামলার পলাতক আসামীরা হচ্ছেন বাবুল মিয়া, উস্তার মিয়া ও বেলাল মিয়া। আদালত সূত্রে জানা যায়, ইতিমধ্যে পলাতক ৩জন আসামীর মালামাল ক্রোকাদেশ তামিল হয়েছে। পুলিশ তাদের মালামাল ক্রোক করেছে। তাই আজ রবিবার নির্ধারিত তারিখে পলাতকদের বিষয়ে সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের আদেশ দিয়েছেন আদালত। এছাড়া হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত আটক সিএনজি অটোরিকশা নিজেদের জিম্মায় নেয়ার জন্য আবেদন করেছিলেন একটি মালিক কদ্দুছ মিয়া এবং অপরটির মালিক হত্যাকান্ডের অন্যতম আসামী বাচ্চু মিয়ার (বন্দুকযুদ্ধে নিহত) পরিবার। বিচারক তাদের এ আবেদন নাকচ করে দিয়েছেন।


উল্লেখ্য, জেলার বাহুবল উপজেলার সুন্দ্রাটিকি গ্রামের জাকারিয়া আহমেদ শুভ (৮), তার চাচাতো ভাই মনির মিয়া (৭), তাজেল মিয়া (১০) ও ইসমাইল হোসেন (১০) গত ১২ ফেব্রুয়ারী গ্রামের পার্শ্ববর্তী মাঠে খেলা দেখতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। ১৭ ফেব্রুয়ারী বাড়ির অদূরে একটি বালুর ছড়া থেকে মাটি চাপা দেয়া অবস্থায় তাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। হৃদয়বিদারক এ ঘটনাটি দেশ-বিদেশে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করে। উক্ত ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার তদন্তভার পান ডিবি পুলিশের তৎকালিন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মুকতাদির হোসেন। তিনি ৪৮ দিন তদন্ত শেষে ৮ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট জমা দেন। এতে অভিযুক্ত করা হয় পঞ্চায়েত সর্দার আব্দুল আলী বাগাল, তার ছেলে জুয়েল মিয়া ও রুবেল মিয়া, ভাতিজা সাহেদ আলী ওরফে সায়েদ, অন্যতম সহযোগি হাবিবুর রহমান আরজু, উস্তার মিয়া, বেলাল মিয়া ও বাবুল মিয়াকে। তাদের মাঝে এখনও পর্যন্ত পলাতক রয়েছে উস্তার মিয়া, বেলাল মিয়া ও বাবুল মিয়া।

এবিএন/রবি-২য়/সারাদেশ/নুরুজ্জামান ভূঁইয়া/মুস্তাফিজ/তোহা

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত