logo
বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৬
 
ekattor
  • হোম
  • রাজনীতি
  • জঙ্গিবাদ বিরোধী ইস্যু : বিএনপির ঐক্য নিয়ে সংশয়
জঙ্গিবাদ বিরোধী ইস্যু : বিএনপির ঐক্য নিয়ে সংশয়
জঙ্গিবাদ বিরোধী ইস্যু : বিএনপির ঐক্য নিয়ে সংশয়

ঢাকা, ০৭ আগস্ট, এবিনিউজ : বিএনপির জঙ্গিবাদ বিরোধী রাজনৈতিক ঐক্যের উদ্যোগ নিয়ে শুরুতেই সংশয় দেখা দিয়ছে। এ ঐক্য আদৌ সম্ভব হবে কিনা তাই প্রশ্নের সম্মুখীন। কয়েকটি দল বলছে, জামায়াত ও ১৫ আগস্টে বেগম খালেদা জিয়ার জন্ম দিন পালনসহ কয়েকটি ইস্যুতে আগেই বিএনপি তার অবস্থান পরিষ্কার করতে ব্যর্থ হলে উদ্যোগটি ভেস্তে যাবে। একজন বিশ্লেষক বলছেন, জামায়ত ত্যাগ ও চেয়ারপার্সনের জন্মদিনসহ কয়েকটি ইস্যুতে বিএনপির দিক থেকে ছাড় দেয়া কঠিন হবে। তবে বিএনপির একজন নেতা বলছেন, তাদের বিশ্বাস আলোচনার মাধ্যমেই দলগুলোর সাথে দূরত্ব কমিয়ে আনা সম্ভব হবে। অবশ্য ঢাকায় জঙ্গি হামলার পর দলগুলোর মধ্যে একটি জাতীয় ঐক্য গড়ে তোলার যে আহবান এসেছিলো বিএনপির দিক থেকে সেটি প্রথমেই হোঁচট খেয়েছিল সরকারি দল আওয়ামী লীগ ও তাদের শরীক দলগুলোর নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া আসার কারণে।
এরপর দলটি উদ্যোগ নিয়ে আনুষ্ঠানিক ও অনানুষ্ঠানিক ভাবে যোগাযোগ শুরু করে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের বাইরে থাকা দলগুলোর সঙ্গে। দলটির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য অবসরপ্রাপ্ত বিগ্রেডিয়ার জেনারেল আসম হান্নান শাহ গণমাধ্যমকে বলেছেন ঐক্যের বিষয়ে তারা অনেক দুর এগিয়েছেন। তিনি বলেন, বিভিন্ন দল যারা আমাদের জোটে নেই তাদের নেতৃবৃন্দের সাথে আলোচনা চলছে। কেউ কেউ তাদের মতামত দিচ্ছেন। সব কিছুই গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করছি আমরা।
এদিকে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সাথে সাক্ষাত করে সম্প্রতি কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি কাদের সিদ্দিকী ঐক্যের শর্ত হিসেবে এমন কিছু প্রস্তাব দিয়েছেন তাতে জামায়াতে ইসলামিকে বাদ দেয়া ও খালেদা জিয়ার জন্মদিন পালনের মতো বিষয়গুলোও রয়েছে। তিনি বলেন, ঐক্য বা সমর্থন বিএনপিকে এসব বিষয়ে অবস্থান পরিষ্কার করতে হবে। তিনি আরও বলেন, তারা জামায়াতকে ত্যাগ করলে, কখনো হাওয়া ভবন হবেনা এমন কথা বললে, জনগণের কাছে গেলে আমাদের সমর্থন পাওয়ার সম্ভাবনা আছে। আমি বলেছি পনেরই অগাস্ট জন্মদিন পালন জাতির জন্য দুঃখজনক। জামায়াতের সাথে রাজনীতি করবোনা।
বিএনপির পক্ষ থেকে আরও যাদের সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে ড. কামাল হোসেনের দল গণফোরামও। দলটির নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী বলছেন জামায়াত যেখানে থাকবে সেখানে গণফোরাম থাকবেনা। কিন্তু রাজনৈতিক ঐক্যের স্বার্থে জামায়াতকে বাদ দেয়া, পনেরই অগাস্ট জন্মদিন পালন না করা কিংবা বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমানের বিষয়ে দৃষ্টিভঙ্গিতে পরিবর্তন আনার মতো বিষয়গুলোতে ছাড় দিতে বিএনপি কতটা প্রস্তুত? এমন প্রশ্নের জবাবে হান্নান শাহ বলেন, বঙ্গবন্ধুর মৃত্যু দিবস বা কারও জন্মদিবসকে আমরা জাতীয় ইস্যু মনে করিনা। আলোচনার মাধ্যমেই সব কিছুর নিষ্পত্তি হবে বলে তিনি মনে করেন।
কিন্তু ইংরেজি দৈনিক নিউজ টুডের সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ মনে করেন ঐক্যের শর্ত হিসেবে যেসব প্রস্তাব আসছে সেগুলোর সব মেনে নেয়া বিএনপির জন্য কঠিন হবে। তিনি বলেন, এগুলো শর্ত হলে তাহলে এ ঐক্য হওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ, আমার ধারণা হবেনা। তবে শেষ পর্যন্ত জঙ্গি ইস্যুতে ঐক্য বা কোন মোর্চা গঠন সম্ভব না হলেও বিএনপি নেতাদের অনেকের ধারণা এ প্রচেষ্টার মাধ্যমে বিএনপি ও আওয়ামী জোটের বাইরে থাকা দলগুলোর সাথে তাদের সম্পর্ক আরও কিছুটা ঘনিষ্ঠ হয়ে উঠতে পারে।

এবিএন/রবি-১ম/এক্সক্লুসিভ/রাজনীতি/ডেস্ক/এমআর/মুস্তাফিজ/লাম

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত