logo
সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৬
 
 
আগামী সপ্তাহে দেখা মিলবে ‘উল্কাবৃষ্টি’
আগামী সপ্তাহে দেখা মিলবে ‘উল্কাবৃষ্টি’

ঢাকা, ০৬ আগস্ট, এবিনিউজ : ঠিক এক সপ্তাহ পর রাতের আকাশে দেখা যাবে আলোর ফুলঝুরি। ঝরে পড়বে প্রচুর আলোর ফুলকি। সেগুলো ছিটকে যাবে আকাশের এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্তে। ১১ আগস্ট মধ্যরাতের পর থেকে ১২ আগস্টের ভোর এবং ১২ আগস্টের মধ্যরাতের পর থেকে ১৩ আগস্টের ভোর পর্যন্ত যে কোনো সময় আকাশে খালি চোখেই দেখা যাবে উল্কাবৃষ্টি।
গত সাত বছরে গোটা বিশ্বে এত ভাল ভাবে উল্কাবৃষ্টি দেখার সুযোগ মেলেনি। বর্ষার ভারী মেঘে আকাশ ঢেকে না থাকলে বা ওই দুই রাতে জমাট বাঁধা অন্ধকার এলাকায় না থাকলে আকাশে দেখা যাবে ওই আলোর ফুলঝুরি। ‘সুইফ্ট টার্টল’নামক ধূমকেতুর সৌজন্যে দেখা যাবে এই উল্কা বৃষ্টি।
প্লুটোর পর এই সৌরম-লের প্রায় শেষ সীমায় যে ‘ক্যুইপার বেল্ট’ রয়েছে, সেখান ছুটে আসছে ওই ধূমকেতু। ১৩৩ বছর অন্তর এক বার করে আসে ‘সুইফ্ট টার্টল’ ধূমকেতু।
ধূমকেতুর নিউক্লিয়াসের বেশ কিছুটা অংশ সূর্যের টানে ছিটকে বেরিয়ে আসে। সূর্যকে যে কক্ষপথে আবর্তন করছে ধূমকেতুটি, প্রতি বছর আগস্টে সেই কক্ষপথে অল্প কিছু সময়ের জন্য ঢুকে পড়ে পৃথিবীর কক্ষপথ। পৃথিবীর অভিকর্ষ বলে জড়িয়ে পড়ে ধূমকেতুর নিউক্লিয়াস থেকে ছিঁড়ে-ছিটকে ঘণ্টায় প্রায়এক লাখ ৩২ হাজার মাইল গতিবেগে বেরিয়ে আসে।
জানা যায়, বছরে এ রকম বেশ কিছু উল্কাপাতের ঘটনা ঘটে। তার মধ্যে দৃশ্যমানতা বা ঔজ্জ্বল্যের নিরিখে তিনটি উল্কাপাতের ঘটনা সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। তার একটি ‘পারসেড’ উল্কাবৃষ্টি। অন্য দুটি ‘লিওনেড’এবং ‘জেমিনিড’।
এই উল্কাবৃষ্টির সময় ধূমকেতুটির পিছনে যে নক্ষত্রপুঞ্জটি থাকে সাধারণত, তার নামেই ওই উল্কাবৃষ্টির নাম দেয়া হয়। এবারের উল্কাবৃষ্টির নাম ‘পারসেড মেটিওর শাওয়ার’।
মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র নাসার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ‘সাধারণত, প্রতি ঘণ্টায় এমন আলোর ফুলকি আকাশে যতগুলো দেখা যায়, গাণিতিক হিসেব বলছে, এ বার দেখা যাবে প্রায় তার দ্বিগুণ। ঘণ্টায় ২০০টি। ২০০৯ সালের পর এই প্রথম পারসেড উল্কাবৃষ্টি এতটা জোরালো ভাবে দেখা যাবে।

এবিএন/শনি-১ম/তথ্যপ্রযুক্তি/শংকর রায়/মুস্তাফিজ/এস আর

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত