logo
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৬
ekattor
  • হোম
  • সারাদেশ
  • আশাশুনিতে ফেন্সিডিল উদ্ধার : প্রকৃত অপরাধীদের শনাক্ত করার দাবী
আশাশুনিতে ফেন্সিডিল উদ্ধার : প্রকৃত অপরাধীদের শনাক্ত করার দাবী
আশাশুনিতে ফেন্সিডিল উদ্ধার : প্রকৃত অপরাধীদের শনাক্ত করার দাবী

আশাশুনি (সাতক্ষীরা), ০৫ আগস্ট, এবিনিউজ : আশাশুনি উপজেলার সোদকনা গ্রামে ফেন্সিডিল ভাগাভাগি ঘটনার পর পুলিশ কর্তৃক পরিত্যাক্ত ফেন্সিডিল উদ্ধারের ঘটনা নিয়ে এলাকায় গুঞ্জন চলছে। ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত প্রকৃত অপরাধীদের শনাক্ত করে আইনের মুখোমুখি করার দাবী জানিয়েছে এলাকাবাসী। আশাশুনি উপজেলার সীমান্তবর্তী চাম্পাফুল গ্রাম থেকে পুলিশ পরিত্যক্ত অবস্থায় ৩৬০ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করেন গত ১ আগষ্ট রাতে। পুলিশ চাম্পাফুল থেকে ফেন্সিডিল উদ্ধার করলেও প্রথমে ফেন্সিডিল আটক বা ফেলে পালানোর ঘটনা ঘটেছিল সোদকনা ইট ভাটা ও বলফিল্ডে। জনপ্রতিনিধি ও চাম্পাফুল গ্রামের মাখম স্বর্ণকার, উজিরপুর গ্রামের মহম্মদ আলীর পুত্র আজগর, চাঁদখালী গ্রামের মৃতঃ ছোরমান গাইনের পুত্র শফিকুলসহ এলাকাবাসী সাংবাদিকদের জানান, মাদক ব্যবসায়ী চক্রের সদস্যরা ঘটনার রাতে ফেন্সিডিল নিয়ে বলফিল্ডের কাছে পৌঁছলে কিছু লোকজন তাদেরকে তাড়া করলে ৪ বস্তা ফেন্সিডিল (অনুমান ৭/৮ শ’ পিচ) ফেলে মাদক ব্যবসায়ীরা গা ঢাকা দেয়। এসময় উপস্থিত জনতা ফেন্সিডিল কাড়াকাড়ি/ভাগাভাগি করে নেয়। চাম্পাফুলের মনিরুল, সাদ্দাম, হাবিবুর, কাউয়ুম অবশিষ্ট ৩৬০ পিচ তাদের গ্রামে নিয়ে যায়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে তারা জন প্রতিনিধির মাধ্যমে পুলিশে খবর দিলে পুলিশ চাম্পাফুলে পৌছে পরিত্যক্ত অবস্থায় ৩৬০ পিচ ফেন্সিডিল উদ্ধার করেন। ফলে ফেন্সিডিল পাচারকারী ও সকল ফেন্সিডিল অলক্ষে থেকে যায়। আজগর, শফিকুল, তপন জানান, তারা কেউ ভাড়ায় মটর সাইকেল চালান ও কেউ মৎস্য ঘেরে পাহারার কাজ করেন। তারা ফেন্সিডিল উদ্ধার বা পাচারের ঘটনার সাথে বিন্দুমাত্র সংশ্লিষ্ট না হলেও পূর্ব শত্রুতা ও বিগত নির্বাচনে ভোট না দেওয়ার কারণে শত্রুতার জের ধরে উদ্দেশ্যমূলক ভাবে ঐ পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার হওয়্ ঘটনার মামলায় আসামী করা হয়েছে। এলাকাবাসীর দাবী ফেন্সিডিল উদ্ধারের প্রথম স্থানে তদন্তকাজ করে প্রকৃত পাচারকাজের সাথে জড়িতদের শনাক্ত করে অপরাধী চক্রের বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হোক।

 
এবিএন/শুক্র-২য়/সারাদেশ/জি.এম মুজিবুর রহমান/মুস্তাফিজ/রাজ্জাক

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত