logo
শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০১৬
 
 
পাঁচবিবি সীমান্তে দিয়ে যাচ্ছে মাছের পোনা
পাঁচবিবি সীমান্তে দিয়ে যাচ্ছে মাছের পোনা
পাঁচবিবি (জয়পুরহাট), ০৫ আগস্ট, এবিনিউজ : জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলার কয়া ও হাটখোলা সীমান্তে চোরাকারবারীরা সক্রিয় হয়ে ওঠায় এই দুইটি সীমান্তে চোরাচালান ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে প্রতি রাতে কোটি কোটি টাকার আন্ত মুখী ও বহিঃমুখী অবৈধ পণ্য সামগ্রী আনা নেয়া চলছে নির্বিঘ্নে। এলাকা ঘুরে জানাগেছে এই দুটি সীমান্তে কয়েকদিন পূর্বে আনাগোনা বেড়েছিল হতদরিদ্র, স্বামী পরিত্যক্ত, বিধবাসহ পঙ্গু প্রতিবন্ধী জিরা পাচারকারীদের। এলাকাবাসী আরোও জানান, এসব ব্যবসায়ীদের কারনে দিনের বেলায় সীমান্ত পয়েন্টগুলো মুখরিত হয়ে থাকায় নজরে আসে বিভিন্ন পেশার মানুষের। বর্তমানে চোরাচালান সিন্ডিকেটের শীর্ষ ব্যবসায়ী চেঁচড়া এলাকার আনিস সীমান্তের কতিপয় বিজিবির অসাধু সদস্য ও তাদের অলিখিত চুক্তির মাধ্যমে দুইটি সীমান্তে প্রায় ২৫/৩০ জন নিয়োগ কৃত লাইনম্যান এলাকার প্রভাবশালী মহল ও চোরাচালানকারীদের যোগসাজসে কৌশলে দিনের বেলা সীমান্তে মানব শুন্য দেখিয়ে রাতে চলছে অবাধ চোরাচালান। ফলে প্রতিরাতে ভারত থেকে নির্বিঘ্নে প্রবেশ করছে বিট লবণ, কাপড়ের বেল্ট, বাইসাইকেল, গরু, মাদকসহ বিভিন্ন পণ্য। বিনিময়ে এ দেশ থেকে যাচ্ছে স্বর্ণ, মাছের পোনা, খাসি, ইলিশ মাছ ইত্যাদি। এদিকে আরোও একটি সূত্র থেকে জানা গেছে কয়া, হাটখোলা সীমান্ত সংলগ্ন বিভিন্ন স্থানে বিটলবণের ট্রাক লোড হচ্ছে প্রতি রাতেই এর সঙ্গে আরোও যোগ হয়েছে ভারতীয় কাপড়ের বেল্ট। 
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বিট লবন ও কাপড়ের আকৃতির বেল্ট ট্রাকে লোড দেয়া হচ্ছে, আসলেই ওই বেল্টের ভিতরে কাপড় আছে না অন্য কিছু আছে তা অনুমান করা যায় না। এলাকার সচেতন মহলের অভিমত দেশে এখন জঙ্গি আতংকে সাধারণ মানুষ থেকে প্রসাশন পর্যন্ত ভিতসন্ত্রস্ত, আবার জঙ্গীদের গ্রেফতারে চলছে বিশেষ অভিযান। এর মধ্যে সীমান্ত প্রায় অরক্ষিত থাকায় চোরাচালানীর ছদ্মবেশে যে কোন সময় শীর্ষ জঙ্গী সন্ত্রাসীরা ভারতে পাড়ি জমাতে পারে। এছাড়াও যে কোন সময় এসব পণ্যের আড়ালে ভারত থেকে ছোট বড় আগ্নেয়াস্ত্র সহ বিভিন্ন বিস্ফোরক দ্রব্য দেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করার আশংকা উড়িয়ে দিচ্ছে না অনেকেই। 
এ ব্যাপারে ৩ ব্যটলিয়নের অধিন কয়া বিজিবি কোম্পানীর কমান্ডার দেলোয়ার হোসেনের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, সীমান্তে বিজিবির কড়া নজরদারি রয়েছে, তার পড়েও আমার সামনে কোন সদস্য চোরাচালানের মালামাল পাচারে কাউকে সহায়তা করে না, আমার অনুপস্থিতে দুই এক জন সদস্য করতে পারে তা আমার জানা নাই। 
 
এবিএন/শুক্র-২য়/সারাদেশ/ডেস্ক/সজল কুমার দাস/মুস্তাফিজ/ইতি

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত