logo
মঙ্গলবার, ১৭ জানুয়ারি ২০১৭
 
  • হোম
  • সারাদেশ
  • চিতলমারীতে হিন্দু পরিবারের বসতবাড়ি দখলের অভিযোগ

চিতলমারীতে হিন্দু পরিবারের বসতবাড়ি দখলের অভিযোগ

চিতলমারীতে হিন্দু পরিবারের বসতবাড়ি দখলের অভিযোগ
বাগেরহাট, ০৪ আগস্ট, এবিনিউজ : বাগেরহাটের চিতলমারীতে জোরপূর্বক পাওয়ার অব এটর্নির মাধ্যমে এক হিন্দু পরিবারের বসতবাড়ি ও জায়গা-জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ওই দখলদারদের হুমকির মুখে ঘরবাড়ি হারিয়ে পরিবারটি এখন অন্যের চিংড়ি ঘেরের পাড়ে  আশ্রয় নিয়েছে।   
অভিযোগপত্রে জানা গেছে, উপজেলার পরানপুর গ্রামের বিরেন্দ্র নাথ ম-লের বসতবাড়ি ও মাঠের জমি পার্শ্ববর্তী গ্রামের সফেদ আলী নামে এক ব্যক্তি জোরপূর্বক পাওয়ার অব এটর্নি নিয়ে দখল করেছে। উপজেলা রেজিস্ট্রি অফিসের মাধ্যমে ওই পাওয়ার অব এটার্নি বাতিল করা হলেও দখলদারদের হুমকির মুখে বিরেন্দ্র নাথ ম-ল প্রাণ ভয়ে তার পরিবার নিয়ে অন্যের চিংড়ি ঘেরের পাড়ে আশ্রয় নিয়েছে। এ  ঘটনায় ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছে ওই পরিবারটি। 
বিরেন্দ্র নাথ ম-লে কন্যা শান্তনা রানী জানান, প্রায় দ’ুবছর আগে সফেদ আলীর পুুত্র সাব্বিরের সাথে তার ছোট ভাই বিজয় ম-লের বন্ধুত্বের সুবাদে দু’টি পরিবারের মধ্যে সুসম্পর্ক গড়ে ওঠে। এ পরিস্থিতিতে  বিজয় ভারতে চলে যায়। সাব্বির ও তার অন্য ভাই-বোন নিয়মিত ওই বাড়িতে আসা-যাওয়া করে। এ সময় ওই বাড়ি থেকে সমস্ত দলিলপত্র খোয়া যায়। এ অবস্থায় সফেদ আলীর লোকজন বৃদ্ধ বিরেন্দ্র নাথ মন্ডলকে পরিকল্পনা করে বাড়ির সামনে থেকে জোরপূর্বক একটি মটর সাইকেলে তুলে নিয়ে অন্যত্র একটি ঘরে আটকে রেখে আগে থেকে তৈরি করে রাখা কাগজপত্রে তার আঙুলের ছাপ নিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়। বাড়িতে ফিরে পরবর্তীতে বিরেন্দ্র নাথ ম-ল মানষিক ভাবে ভারসাম্যহীন হয়ে পড়ায় তাকে ভারতে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। এ সুযোগে সফেদ আলী তার বাড়িঘর দখল করে নেন। চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরে বিরেন্দ্র নাথ মন্ডল বাড়িতে গেলে তাকে তাড়িয়ে দেওয়া হয়। তিনি বর্তমানে অন্যের চিংড়ি ঘেরের পাড়ে কুড়ে বেধে স্ত্রীকে নিয়ে বসবাস করছেন। এ ঘটনায় নিজের বাড়িঘর ফিরে পেতে তিনি এলাকাবাসি ও প্রশাসনের সহায়তা কামনা করেছেন।  
এ ব্যাপারে সফেদ আলী সব অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, তিনি ওই বাড়িঘর ও জায়গা-জমি ক্রয় করেছেন। টাকা যোগাড় করতে দেরি হওয়ার পাওয়ার অব এটার্নি নিয়েছেন। তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দেয়া  হচ্ছে। 
এ ব্যাপারে অভিযোগের তদন্ত কর্মকর্তা চিতলমারী থানার এএসআই মো. গোলাম নবী  জানান,  বিষয়টি নিয়ে দু’পক্ষকে থানায় ডেকে বসা হয়েছে। কাগজপত্র দেখার পর সফেদ আলীকে বিরেন্দ্র নাথ মন্ডলের বাড়িঘর এক সপ্তাহের মধ্যে দখল ছেড়ে দিতে বলা হয়েছে। 
 
এবিএন/বৃহস্পতি-২য়/সারাদেশ/ডেস্ক/এস এস সাগর/মুস্তাফিজ/ইতি

প্রধান শিরোনাম

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত